আবদুল জব্বারের জ্ঞান ফিরেছে

আপডেট: 01:47:31 28/08/2017



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী আবদুল জব্বারের শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তার জ্ঞান ফিরেছে। তিনি কথাও বলতে পারছেন। তবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ এখনেো তাকে আশঙ্কামুক্তও মনে করছে না। এখানেই চিকিৎসাধীন আছেন অসংখ্য কালজয়ী গানের এই সংগীতশিল্পী।
বিএসএমএমইউ পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জে. মো. আব্দুল্লাহ আল হারুন রোববার (২৭ আগস্ট) বলেন, ‘দেশবরেণ্য শিল্পী আবদুল জব্বারের অবস্থা এখন স্থিতিশীল। তার জ্ঞান ফিরেছে। আজ বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে তাকে দেখতে গিয়েছিলাম। তখন তিনি আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তাকে সাহস দিলাম। গুণী এই শিল্পীও হেসে কথা বললেন আমাদের সঙ্গে।’
তবে বিএসএমএমইউ পরিচালক (হাসপাতাল) উল্লেখ করেছেন, আবদুল জব্বার যেহেতু এখনো আইসিইউতে (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) আছেন তাই তার শারীরিক অবস্থা পুরোপুরি ভালো বলা যায় না।
‘তিনি সুস্থ থাকলে আইসিইউতে রাখা হতো না। তবে এটুকু বলতে পারি, আগের দিনের চেয়ে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়নি।’
আবদুল জব্বার দীর্ঘদিন ধরে কিডনির জটিলতায় ভুগছেন। এ কারণে তিন মাস ধরে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন দরাজ কণ্ঠের এ শিল্পী। শনিবার তার শরীরের মারাত্মক অবনতি ঘটে। রক্তচাপ স্বাভাবিক না থাকায় ডায়ালিসিস করতে না পারায় এ অবস্থা তৈরি হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।
১৯৩৮ সালে ৭ নভেম্বর কুষ্টিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন আবদুল জব্বার। ১৯৫৮ সালে তৎকালীন পাকিস্তান বেতারে গান গাইতে শুরু করেন তিনি। ১৯৬২ সালে চলচ্চিত্রে প্রথম প্লেব্যাক করার সুযোগ আসে তার। ১৯৬৪ সাল থেকে তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশনে নিয়মিত গাইতে শুরু করেন তিনি।
সংগীতশিল্পী আবদুল জব্বার এ পর্যন্ত ছয় হাজারেরও বেশি গান গেয়েছেন। এর মধ্যে কালজয়ী হয়ে আছে ‘সালাম সালাম হাজার সালাম’, ‘ওরে নীল দরিয়া’, ‘তুমি কি দেখেছো কভু জীবনের পরাজয়’ প্রভৃতি। বঙ্গবন্ধু স্বর্ণপদক (১৯৭৩), একুশে পদক (১৯৮০) ও স্বাধীনতা পদকসহ (১৯৯৬) অনেক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন তিনি।
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন