ইবি ছাত্রীকে যৌন হয়রানি : শিক্ষক চাকরিচ্যুত

আপডেট: 10:52:22 22/08/2017



img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজের ডিপার্টমেন্টের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করার দায়ে ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আসাদুজ্জামানকে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার বিকেলে ২৩৬তম সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
ইবি উপাচার্যের বাসভবনে সিন্ডিকেট সভাপতি উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
তদন্ত কমিটির দেওয়া তথ্য-প্রমাণে আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় সিন্ডিকেট সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে অভিযুক্ত শিক্ষককে চাকুরিচ্যুত করা হয়।
সিন্ডিকেট সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মো. সেলিম তোহা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্ববিদ্যালয়) আব্দুল্লাহ-আল-হাসান চৌধুরী, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর কাজী মনজুর কাদির প্রমুখ।
সিন্ডিকেট সভায় একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে ঘুষ লেনদেনের কথোপকথন প্রমাণিত হওয়ায় তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ঘুষ নেওয়ার দায়ে অভিযুক্ত রুহুল আমিন তিন বছর কোনো পদোন্নতি পাবেন না এবং এই সময়ে তার ইনক্রিমেন্ট স্থগিত থাকবে। এছাড়া পাঁচ বছর তিনি প্রশাসনিক কোনো দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না বলে সিদ্ধান্ত হয়।
ইবির তিনটি বিভাগের নাম পরিবর্তনসহ সিন্ডিকেট সভায় বেশকিছু সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে শিক্ষক আসাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে তারই বিভাগের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ ওঠে। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়।

আরও পড়ুন