উদীচী হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি তপনের পরিবারের

আপডেট: 01:30:59 06/03/2019



img

স্টাফ রিপোর্টার : উদীচী হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচার এবং প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদানকৃত জমির উপর মালিকানা দাবি করেছেন নিহত শেখ নাজমুল হুদা তপনের পরিবার।
বুধবার বেলা ১১টায় যশোর প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তার পরিবার দাবি করেন, উদীচী ট্রাজেডির ২০ বছর হলেও এখন পর্যন্ত তার বিচার হয়নি। হত্যাকা-ের বিচার না পেয়ে তারা হতাশ, ক্ষুব্ধ।
পরিবারের পক্ষে তপনের বোন নাজমুন সুলতানা বিউটি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও ক্ষমতায় এসেছেন। আমরা তার কাছে উদীচী হত্যাকা-ের বিচার দাবি করছি। আমার মা এখনও বেঁচে আছেন। মরার আগে ছেলের হত্যাকারীদের বিচার দেখে যেতে চান তিনি।’
তিনি বলেন, ‘আমাদের এই অসহায় অবস্থার কারণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শহরের গাড়িখানায় একটি পরিত্যক্ত বাড়িসহ ৫ শতক জমি দেন (স্মারক-১৩৩৯৫৫০০৯৯-১৭৫/০৭.০৪.৯৯)। সরকার নির্ধারিত দাম পরিশোধসহ ওই জমির (মৌজা-৮০, যশোর, খতিয়ান-১৮৯, দাগ নম্বর-৯৫। ১৮.০২.১৩ সালে ১৯৩২/১৩ নম্বর সাফ কবলা দলিলমূলে যশোরের জেলা প্রশাসক রেজিস্ট্রি করে দেন) খাজনা দিয়ে আসছি। গত বছরের অক্টোবর মাসে আমরা যখন পরিত্যক্ত ওই বাড়িটি ভেঙে সেখানে ঘর তুলতে যাচ্ছি, সেই সময় যশোরের তৎকালীন পুলিশ সুপার ওই জমি পুলিশের দাবি করে অদালতের মাধ্যমে তাতে নিষেধাজ্ঞা জারি করান।’
আমরা বলতে চাই, ‘যেখানে প্রধানমন্ত্রী আমাদের জমি দিয়েছেন, একজন পুলিশ অফিসার সেখানে কীভাবে বাধা দেন।’
‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাই, তিনি যেন আমাদের ওই জমির মালিকানা বুঝিয়ে দিয়ে আমাদের মানবেতর এই অবস্থা থেকে মুক্তি দেন’-বলেন তারা।
সংবাদ সম্মেলনে নিহত তপনের মা শামসুনন্নাহার,  বোন নাজমুন সুলতানা বিউটি, নাদিয়া সুলতানা লিপি, মুনিয়া সুলতানা, ছোটভাই মাসুদ পারভেজ এবং উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী জেলা সংসদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহবুবুর রহমান মজনু উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, ১৯৯৯ সালের ৬ মার্চ রাতে যশোর টাউন হল মাঠে উদীচীর দ্বাদশ জাতীয় সম্মেলনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বোমা হামলায় নিহত হয়েছিলেন নাজমুল হুদা তপন, সন্ধ্যা রাণী দাস, ইলিয়াস মুন্সী, বাবুল সূত্রধরসহ ১০ সাংস্কৃতিককর্মী। আহত হন শতাধিক মানুষ।

আরও পড়ুন