উপনির্বাচনে পলাশের স্ত্রী ও হত্যা মামলার আসামি প্রার্থী

আপডেট: 08:35:11 16/04/2018



img

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে ছয় প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদের মধ্যে পলাশ হত্যা মামলার আসামিও রয়েছেন। পলাশ ছিলেন ইউনিয়নটির চেয়ারম্যান। তিনি খুন হওয়ার পর চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়।
সোমবার উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে ছয় প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। তারা হলেন, দিঘলিয়া ইউপির নিহত চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান পলাশের স্ত্রী নীনা ইয়াসমিন (আওয়ামী লীগ), সাহিদুল আলম (স্বতন্ত্র), ওহিদুর রহমান (স্বতন্ত্র), মাকসুদুল হক (বিএনপি), জালাল উদ্দিন বিশ্বাস (স্বতন্ত্র) ও রবিউল ইসলাম পলাশ (স্বতন্ত্র)। এর মধ্যে ওহিদুর রহমান সরদার একই ইউনিয়নের নিহত চেয়ারম্যান পলাশ হত্যা মামলার আসামি। বর্তমানে তিনি জেলহাজতে রয়েছেন। নিহত পলাশের স্ত্রী নীনা ইয়াসমিন ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন ।
উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার সেলিম রেজা জানান, স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ধারা ২০ এবং স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০-এর বিধি ১০ অনুসারে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক প্রদত্ত ক্ষমতাবলে দিঘলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদের শূন্য আসনে উপ-নির্বাচন উপলক্ষে গত ৫ এপ্রিল তফসিল ঘোষণা করা হয়। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র বাছাই ১৯ এপ্রিল, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৬ এপ্রিল, ২৭ এপ্রিল প্রতীক বরাদ্দ এবং ভোট গ্রহণের তারিখ ১৫ মে।
গত ১৫ ফেব্রুয়ারি দিঘলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান পলাশকে সন্ত্রাসীরা উপজেলা পরিষদ চত্বরে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে।

আরও পড়ুন