উৎসব-আয়োজনে চলছে বর্ষবরণ

আপডেট: 02:38:35 14/04/2018



img
img
img
img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : আজ ১৪২৫ বঙ্গাব্দের প্রথম দিন পয়লা বৈশাখ। রাজধানীসহ সারা দেশে নানা উৎসব আয়োজনে বরণ করা হচ্ছে দিবসটি। নতুন বছরে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজধানীতে রমনা বটমূলে চলছে  ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠান।
প্রতি বছরের মতো এবারও পয়লা বৈশাখ উদযাপন উপলক্ষে সবচেয়ে বড় আয়োজন  রমনা পার্কে। নতুন বছরের সূর্য ওঠার সঙ্গে সঙ্গে সকাল সোয়া ৬টা থেকে রাজধানীর রমনা বটমূলে শুরু হয়েছে ছায়ানটের পরিবেশনা। 'এসো হে বৈশাখ, এসো এসো' গানের সুরে ছায়ানটের শিল্পীরা বরণ করেন নতুন বাংলা বছরকে। গানের মূর্ছনা, কবিতা, আবৃত্তিতে ভরে ওঠে গোটা রমনা বটমূল চত্বর। সোনালি রঙের পোশাকে ছায়ানটের শিল্পীদের 'মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি' এই প্রতিপাদ্যে, ১৪২৫ বঙ্গাব্দের মঙ্গল শোভাযাত্রা  চারুকলা অনুষেদের উদ্যোগে শুরু হবে সকাল দশটায়।
কৃষিকাজ ও খাজনা আদায়ের সুবিধার জন্য বাংলা সন গণনার শুরু মোঘল সম্রাট আকবরের সময়ে। হিজরি চান্দ্রসন ও বাংলা সৌরসন ভিত্তি করে প্রবর্তন হয় নতুন এই বাংলা সন।
১৫৫৬ সালে কার্যকর হওয়া বাংলা সন প্রথমদিকে পরিচিত ছিল 'ফসলি সন' নামে, পরে তা পরিচিত হয় বঙ্গাব্দ নামে। কৃষিভিত্তিক গ্রামীণ সমাজের সঙ্গে বাংলাবর্ষের ইতিহাস জড়িয়ে থাকলেও এর সঙ্গে রাজনৈতিক ইতিহাসেরও সংযোগ ঘটেছে।
পাকিস্তান শাসনামলে বাঙালি জাতীয়তাবাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি হয় বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের। আর ষাটের দশকের শেষে তা বিশেষ মাত্রা পায় রমনা বটমূলে ছায়ানটের আয়োজনের মাধ্যমে।
আমাদের স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্ট :

সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরায় বর্ণিল আয়োজনে উৎসবমুখর পরিবেশে পালিত হচ্ছে পহেলা বৈশাখ। এ উপলক্ষে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে পাঁচ দিনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। শনিবার সকাল সাতটায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য বৈশাখি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অনুষ্ঠানরত বৈশাখিমেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মিলিত হয়।
এখানে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, পুলিশ সুপার মো. সাজ্জাদুর রহমান, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এএনএম মঈনুল ইসলাম, সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর বিশ্বাস সুদেবকুমার, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আব্দুল খালেক, পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান বাবু।

নড়াইল : নতুন বছরকে বরণ করে নিতে নড়াইলে জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বর ও সুলতান মঞ্চে পাঁচ দিনব্যাপী মেলার আয়োজন করা হয়েছে।
আজ শনিবার সকাল আটটায় সুলতান মঞ্চে মঙ্গলপ্রদীপ জ্বেলে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. এমদাদুল হক চৌধুরী। এর আগে সকাল সাড়ে ছয়টায় শতাধিক শিল্পীর কণ্ঠে প্রভাতি গানের মধ্য গিয়ে নতুন বছরকে বরণ করা হয়।
সকাল আটটায় নড়াইল ভিক্টোরিয়া কলেজের সুলতান মঞ্চে থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে এসে শেষ হয়। এ সময় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সোহবাব হোসেন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিমউদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়ারুল ইসলাম, বর্ষবরণ উদযাপন পর্ষদের সভাপতি প্রফেসর মুন্সি হাফিজুর রহমান, সদস্য সচিব মলয়কুমার কুণ্ডুসহ সাংস্কৃতিক কর্মী, রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
পাঁচদিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে আরো রয়েছে কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাংকন, হাতের লেখা, লাঠিখেলা, লোকনৃত্য, লোকসংগীত, ভলিবল ও আরচারি প্রতিযোগিতা, গ্রামীণ খেলাধুলা, আলোচনাসভা প্রভৃতি। জেলা প্রশাসন ও বর্ষবরণ উদযাপন পর্ষদ এর আয়োজন করেছে।
এদিকে, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে বাংলাদেশ পরিবেশক সমিতি জেলা শাখার আয়োজনে একটি র‌্যালি বের হয়ে শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে শেষ হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পরিবেশক সমিতি নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি গিয়াস উদ্দিন খান ডালু, সম্পাদক কাজী লোকমান হোসেন লিটন, ব্যবসায়ী আসলাম খাঁন বুলু, সুভাশিষ কুণ্ডু প্রমুখ।

মাগুরা : নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মাগুরায় পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হচ্ছে। সকাল আটটায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহর ঘুরে নোমানী ময়দানে এসে শেষ হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ্রীবিরেন শিকদার, জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমান, পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুণ্ডুসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের কর্মীরা।
এর আগে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে নোমানী ময়দানে উদীচী উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

আরও পড়ুন