এবছর শেষ হচ্ছে না পদ্মা সেতুর কাজ

আপডেট: 01:31:16 04/06/2018



img

তানজিল হাসান, মুন্সীগঞ্জ : পদ্মা সেতু প্রকল্পের মূল সেতুর কাজ করছে চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন কোম্পানি। মূল সেতুর কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের নভেম্বরে এবং পদ্মা সেতু প্রকল্পের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্যমতে, ২০১৮ সালের নভেম্বরে এই সেতুর সব কাজ শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু সিডিউল অনুযায়ী এবছর কাজ শেষ হচ্ছে না। নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে আরো বেশি সময় লাগবে বলে নিশ্চিত করেছেন পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের।
ইতিমধ্যে সেতুর চারটি স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) পিলারের ওপরে বসানো হয়েছে। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারে বসানো হয় প্রথম স্প্যান। দ্বিতীয় স্প্যান ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি, তৃতীয় স্প্যান ১১ মার্চ এবং সর্বশেষ চতুর্থ স্প্যান বসানো হয় ১৩ মে। দেখা যাচ্ছে, প্রথম স্প্যান বসানোর প্রায় চার মাস পর দ্বিতীয় স্প্যান বসে। দ্বিতীয় স্প্যান বসানোর প্রায় দেড় মাস পর তৃতীয় স্প্যান এবং তৃতীয় স্প্যান বসানোর দুই মাস পরে বসেছে চতুর্থ স্প্যান।
সেতু সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের সূত্রে জানা যায়, পঞ্চম স্প্যান আগামী জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে বা আগস্টের প্রথম সপ্তাহে বসানো হবে। এই গতিতে কাজ চললে আগামী নভেম্বরে কোনোভাবেই সেতুর কাজ সম্পূর্ণ হবে না। কারণ, আরো ৩৭টি স্প্যান বসানোর কাজ এখনো বাকি আছে।
তবে কাজ শেষ করতে অতিরিক্ত সময় চেয়ে এখনো কোনো লিখিত আবেদন করেনি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান বলে জানিয়েছেন সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প ব্যবস্হাপক দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের।
তিনি বলেন, ‘পদ্মা সেতুর কাজ এগিয়ে চলছে। তবে ২০১৮ সালের নভেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ হবে না। সময় বাড়াতে হবে—নো ডাউট।’
ঠিক কতদিন সময় বেশি লাগবে তা এখনই বলা সম্ভব নয় বলে জানান তিনি।
দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের আরো বলেন, ‘নদীর মধ্যে মোট ৪০টি পিলার বসবে। এর মধ্যে ২০টি পিলারের সব পাইলিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে।’
এদিকে, পদ্মা সেতুর ১১টি পিলারের নকশার কাজ এখনো বাকি আছে। সেতুর কাজ এগিয়ে নিতে এটা কোনো বাধা নয় বলে দাবি করেন এই কর্মকর্তা।
তিনি বলেন, ‘মোট ১৪টি পিলারের নকশার কাজ চূড়ান্ত করা বাকি ছিল। এর মধ্যে তিনটি পিলারের নকশার কাজ ফাইনাল করা হয়েছে। এগুলো ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে সরবরাহ করা হয়েছে। বাকি ১১টি পিলারের নকশার কাজ আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরের মধ্যে ফাইনাল হয়ে যাবে বলে আশা করছি।’
উল্লেখ্য, প্রায় ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ এ বছরের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা করছে সরকার। চতুর্থ স্প্যানটি বসানোর পর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘের পদ্মা সেতুর ৬০০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে।
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন