কলারোয়ায় জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা ‘পাইপগানসহ’ আটক

আপডেট: 07:32:53 16/05/2018



img

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : কলারোয়ায় জামায়াতের কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য অধ্যক্ষ আশফাকুর রহমান বিপুকে আটক করেছে পুলিশ। তার কাছ থেকে পাইপগান ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার হয়েছে বলে দাবি পুলিশের।
বুধবার দুপুরে উপজেলার সোনাবাড়িয়া থেকে বিপুকে আটক করা হয়।
গ্রেফতার বিপু (৪৮) কলারোয়া উপজেলার জালালাবাদ গ্রামের মৃত আলফার রহমানের ছেলে ও সোনাবাড়িয়া সোনার বাংলা ডিগ্রি কলেজের সাময়িক বরখাস্ত হওয়া অধ্যক্ষ।
কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লবকুমার নাথ বলছেন, জামায়াত নেতা আশফাকুর রহমান বিপু সোনাবাড়িয়া কলেজ এলাকায় অবস্থান করছেন বলে খবর পান তারা। পরে তার নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে কলেজের সামনের রাস্তা থেকে তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছে লুকিয়ে রাখা অবস্থায় একটি পাইপগান ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে।
এর আগে জামায়াতের এই নেতার বিরুদ্ধে নয়টি নাশকতার মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি।
স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, গ্রেফতার আশফাকুর রহমান বিপু ছাত্রজীবনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রশিবিরের দুর্ধর্ষ ক্যাডার ছিলেন। ১৯৯৫ সালে ছাত্রদল-শিবির সংঘর্ষে হাবিবুর রহমান হলের সামনে বোমা বিস্ফোরণে তার একটি হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তখন থেকে তিনি ‘হাতকাটা বিপু’ নামে পরিচিত । তেজস্বী বক্তা হওয়ায় পরে তিনি জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে পৌঁছে যান। বিগত ২০১৩-১৪ সালে কলারোয়া ও সাতক্ষীরাঞ্চলে সামনের সারিতে থেকে জামায়াত-শিবিরকে নেতৃত্ব দেন তিনি।
বিগত চার দলীয় জোট সরকারের আমলে সোনাবাড়িয়া সোনার বাংলা কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ পান আশফাকুর রহমান বিপু। নাশকতার মামলার পর কলেজের অধ্যক্ষ পদ থেকে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

আরও পড়ুন