কালামের দেড় লাখ টাকা দামের ছাগল

আপডেট: 05:26:49 08/04/2018



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : কালামের বড় ছাগলটির দাম দেড় লাখ টাকা। আর প্রকার ভেদে অন্যান্য ছাগলের দাম ৮০ থেকে ৫০ হাজার টাকা।
কালাম বাড়িতে গড়ে তুলেছেন প্রজনন ছাগলের খামার। প্রজনন ছাগল (পাঁঠা) পালন করে প্রতিদিন আয় হয় তিন থেকে চার হাজার টাকা। তার বাড়িতে প্রজনন কাজে রয়েছে আটটি দেশি-বিদেশি জাতের প্রজনন ছাগল।
কালামের বসবাস বেনাপোল পোর্ট থানার কাগজপুকুর রেললাইনের বস্তিতে।
আবুল কালাম জানান, বেনাপোল ও শার্শা এলাকায় যারা ছাগী পালন করে তারা প্রজননের সময় হলে এখানে নিয়ে আসেন। কারণ এই খামারে সব চেয়ে বড় জাতের প্রজনন ছাগল রয়েছে।
‘আমি ভারত থেকে তোতা জাতের ছাগলটি ৮০ হাজার রুপিতে কিনে এনেছি। বর্তমানে ছাগলটির দাম প্রায় দেড় লাখ টাকা। ৩০ বছর ধরে এ কারবার করছি। পরিবারের ১২ সদস্যর ভরন-পোষণ, চিকিৎসাসহ অন্যান্য খরচ এই ছাগল থেকে আসে। বড় ছাগলটির প্রজনন ফি ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা। আর অন্যান্য ছাগলের প্রজনন ফি ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা।’
তিনি জানান, সকাল থেকে ছাগলের পেছনে তার সময় কাটে। ছাগলের খাবার দেওয়া, সপ্তাহে একদিন গোছলসহ প্রজনন কাজে তাকে এ সময় ব্যয় করতে হয়। তবে তার সঙ্গে পরিবারের অন্য সদস্যরাও সময় দিয়ে থাকেন। ছাগলগুলো খুব দুর্দান্ত। তাদের ঠেকাতে সব সময় শক্তি প্রয়োগ করতে হয়। ঘর থেকে বের করতে খুব শক্তি প্রয়োগ করা লাগে। দুইজন মিলে একটি ছাগলকে ঠেকিয়ে রাখা কষ্টকর। প্রতিদিন আটটি ছাগলের পেছনে এক থেকে দেড় হাজার টাকা খাবার দরকার হয়। ছাগলের শরীর খারাপ হলে স্থানীয় পশু ডাক্তারের কাছ থেকে ওষুধ কিনে এনে খাওয়ানো হয়।
এলাকার লোকজন জানান, আবুল কালামের প্রজনন খামার থেকে ছোট ছাগীর প্রজনন দিয়ে বড় বড় বাচ্চা পাওয়া যায়। যদিও ওই খামারের ছাগলের মতো অত বড় হয় না।

আরও পড়ুন