কুষ্টিয়ায় সংঘর্ষে আহতদের আরেকজনের মৃত্যু

আপডেট: 06:52:18 13/09/2017



img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ায় সদর উপজেলার ঝাউদিয়া ইউনিয়নের বাখইল গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ও সাবেক চেয়ারম্যানের লোকজনদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় আহত কৃষক সাহানুর ইসলাম হাসপাতালে মারা গেছেন।
পাঁচ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মঙ্গলবার রাতে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। নিহত সাহানুর মধ্য বাখইল গ্রামের মারফত ম-লের ছেলে। এ নিয়ে ওই সংঘর্ষে এ পর্যন্ত উভয় পক্ষের তিনজন মারা গেলেন।
এদিকে, এ মৃত্যুর খবর এলাকায় পৌঁছালে উভয় পক্ষের মধ্যে আবার উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে পুলিশের উপস্থিতির কারণে কোনো পক্ষই গ্রামে ঢুকতে পারছে না।
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রতন শেখ সাহানুরের মৃত্যু খবর নিশ্চিত করে জানান, এলাকায় এখনো পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। এলাকা দিয়ে যাতায়াতকারীদের তল্লাশি অব্যাহত আছে।
গত ৭ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে সামাজিক দ্বন্দ্ব ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বাখইল গ্রামে ঝাউদিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা কেরামত উল্লাহ ও ঝাউদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান বখতিয়ার হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের বিল্লাল হোসেন ও এনামুল নামে দুইজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। অন্তত ২০ জন আহত হয়। ওই সংঘর্ষে চেয়ারম্যান কেরামত পক্ষের সমর্থক সাহানুর বুকে ফলা বিদ্ধ হয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। মৃত্যু হওয়ায় ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।
উল্লেখ্য, সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ইবি থানায় ১০০ জনকে আসামি করে মামলা হয়। বর্তমান ইউনিয়ন চেয়ারম্যান কেরামত উল্লাহসহ প্রায় ৩০ জনকে পুলিশ আটক করেছে।

আরও পড়ুন