কয়রায় বাঁধ ভেঙে জনপদ তলানোর আশঙ্কা

আপডেট: 01:35:11 04/05/2019



img

খুলনা অফিস : প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী দুর্বল হয়ে পড়লেও আশঙ্কা কাটেনি খুলনার কয়রা উপজেলার গোবরা, ঘাটাখালী ও হরিণখোলা গ্রামের মানুষের। কপোতাক্ষ নদের পাড়ে দেওয়া বেড়িবাঁধ ভেঙে যেকোনো সময় এ তিন গ্রাম তলিয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তারা।
উপকূলবর্তী উপজেলাটির এই তিন গ্রামসহ আশপাশের বহু মানুষ এই বেড়িবাঁধের ওপর এখন অবস্থান করছেন। গতকাল শুক্রবার সারা দিন, সারা রাত এবং আজ শনিবার সকালে পাঁচ শতাধিক মানুষ প্রাণপণ চেষ্টা করে এই বেড়িবাঁধ আপাতত রক্ষা করেছেন। স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে তারা মাটির বস্তা ফেলে বাঁধ রক্ষা করেছেন।
গ্রামবাসী আশঙ্কা করছেন, রাতে জোয়ার এবং বাতাসের তোড়ে এই বেড়িবাঁধের কোনো কোনো জায়গা ভেঙে যেতে পারে।
কয়রা খুলনা সদর থেকে সড়কপথে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে। ঘূর্ণিঝড় ফণীতে যে কয়টি জনপদ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করা হয়, তার মধ্যে কয়রা অন্যতম।
কয়রা উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম শফিকুল ইসলাম গতকাল সারা রাত স্থানীয় মানুষের সঙ্গে থেকে বেড়িবাঁধের কাজ তদারকি করেছেন এবং নিজেও অংশ নিয়েছেন। আজ সকাল থেকে তিনি দুর্গত এলাকায় আছেন।
সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিমুলকুমার সাহা বলেন, পরিস্থিতি মোকাবিলার সব ধরনের প্রস্তুতি উপজেলা পরিষদের আছে। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত উপজেলার কোথাও কোনো ক্ষয়ক্ষতির তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে বেশ কয়েকটি এলাকার বেড়িবাঁধ ঝুঁকির মধ্যে আছে।

আরও পড়ুন