খাবার ফেলে পালালেন বরসহ বিয়েবাড়ির সবাই

আপডেট: 08:33:26 04/05/2019



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরের স্বরুপদহ গ্রামে একাদশ শ্রেণিপড়ুয়া মেয়ের বিয়ের আয়োজন করেছিলেন বাবা।
জাল জন্মসনদ তৈরি করিয়ে অভয়নগরের নওয়াপাড়া পৌর এলাকার নাসির বাঘার ছেলে অনিক বাঘার সঙ্গে মেয়ের বিয়ে ঠিক করেন তিনি। সেই অনুযায়ী শুক্রবার (৩ মে) রাত দশটার দিকে প্রবল বৃষ্টির মধ্যে চলছিল বিয়ের আয়োজন। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে হাজির হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ শরিফী। ইউএনও-কে দেখে খাবার প্লেট ফেলে পালিয়ে যান বরসহ দুই পক্ষের সবাই।
এদিকে, বিয়ে পড়ানোর জন্য হাজির হয়েছিলেন যে কাজী, সেই মাহবুবুর রহমানকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে আদালত কাজীর লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছেন।
শনিবার সন্ধ্যায় ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফী এই সিদ্ধান্ত নেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, মণিরামপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজে একাদশ শ্রেণিপড়–য়া ওই মেয়েটির জন্মসনদ অনুযায়ী বয়স ১৬ বছর ১১ মাস ১৯ দিন। কিন্তু বাবা এক বছর বয়স বাড়িয়ে দিয়ে জাল জন্মসনদ তৈরি করিয়ে মেয়েকে বিয়ে দিচ্ছিলেন। শুক্রবার রাত দশটার দিকে স্বরুপদহ গ্রামে কনের বাড়িতে চলছিল বিয়ের আয়োজন। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ শরিফী ঘটনাস্থলে যান। ততক্ষণে বিয়ে পড়ানো শেষে চলছিল খাওয়ার আয়োজন। বিয়ে পড়িয়েছিলেন পৌরসভার নিকাহ রেজিস্ট্রার মাহবুবুর রহমানের ছেলে আবিদ হাসান সবুজ। ইউএনও-কে দেখে বরসহ সবাই খাবার প্লেট রেখে পালিয়ে যান। পালিয়ে যান কনের বাবাও। ইউএনও বিষয়টি জানতে চাইলে ভুয়া জন্মসনদ বের করে আনে কনেপক্ষ। তার আগেই মেয়েটির মূল জন্মসনদ পৌঁছে যায় ইউএনওর হাতে। তিনি সেটি বের করলে লা-জবাব হয়ে যান জাল সনদপত্র দেখানো বিয়েবাড়ির লোকজন। তাছাড়া ভুয়া যে জন্ম সনদটির বুনিয়াদে কাজী বিয়ে পড়িয়েছেন, তাতেও বিয়ের জন্য ১১ দিন বয়স কম ছিল মেয়েটির।
এই বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ শরিফী বলেন, যেহেতু আদালত ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগে বিয়ে পড়ানোর কাজ শেষ হয়ে গেছে, তাই বয়স পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত মণিরামপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ নূরুজ্জামানকে ওই ছাত্রীর খোঁজখবর রাখতে বলা হয়েছে। কাজী মাহবুবুর রহমানকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একইসঙ্গে তার লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করা হয়েছে।
ইউএনও আরো বলেন, জাল জন্মসনদের বিষয়ে তদন্ত হচ্ছে। তদন্তে যারা দোষী হবেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন