খুলনার ফল প্রত্যাখ্যান, সিইসির পদত্যাগ দাবি

আপডেট: 02:30:30 16/05/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার পদত্যাগ দাবি করেছে বিএনপি।
বুধবার সকালে রাজধানীর নয়া পল্টনের দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ভোটের ফল নিয়ে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই প্রতিক্রিয়া জানান।
তিনি বলেন, “গতকালের ভোটে নিরস্ত্র ভোটারদের ওপর অবৈধ সরকারের অবৈধ ক্ষমতার প্রদর্শন হয়েছে। আমি দলের পক্ষ থেকে গতকালের খুলনা করপোরেশন নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করছি এবং প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি করছি।”
মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত খুলনা সিটির ভোটে বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে বিপুল ব্যবধানে হারিয়ে মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক। কেন্দ্র দখল, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের এজেন্টদের বিতাড়ন, ছাপ্পা ভোটের মাধ্যমে এই ফলাফল অর্জিত হয়েছে বলে বিএনপি মনে করে।
২৮৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ২৮৬টির ঘোষিত ফল অনুযায়ী, নৌকা প্রতীক নিয়ে খালেক পেয়েছেন একলাখ ৭৪ হাজার ৮৯১ ভোট, প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের মঞ্জু পেয়েছেন একলাখ ৯ হাজার ২৫১ ভোট। তিন কেন্দ্রের ভোট স্থগিত।
ভোট দিতে গিয়ে ধানের শীষের ভোটার ও সমর্থকরা ‘নিগৃহীত’ হয়েছে অভিযোগ করে রিজভী বলেন, ভোটের দিন নৌকার প্রার্থীর লোকজনদের ছিল সীমাহীন আধিপত্য ও বেপরোয়া চলাফেরা।
“গ্রুপে গ্রুপে বিভক্ত হয়ে তারা (আওয়ামী লীগ) লাইন ধরে বিভিন্ন কেন্দ্রে জালভোট প্রদান করে। অনেক কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসাররা আওয়ামী ঝটিকা বাহিনীকে একচেটিয়া ‘ভোট কাস্টিংয়ে’ সহায়তা করে। তারা কয়েক মিনিটের মধ্যে ব্যালট পেপারের বান্ডিলে সিল মেরে ব্যালট বাক্স ভর্তি করে। ম্যাজিস্ট্রেটরা এসব দেখেও না দেখার ভান করেছিলেন।”
খুলনায় সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতির হার ৬৫ শতাংশের বেশি বলে নির্বাচন কমিশনের দাবি প্রত্যাখ্যান করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব।
তিনি বলেন, “মূলত, সেখানে ভোটার উপস্থিতি ছিল ৩০ শতাংশেরও কম। সন্ত্রাসীদের হামলা ও বাধার কারণে অধিকাংশ কেন্দ্রেই ভোটাররা যেতে পারেনি।”
নারায়ণগঞ্জ কারাগারে বন্দি গুরুতর অসুস্থ দলের চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের সুচিকিৎসা ও তার মুক্তির দাবি জানান রিজভী।
বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন ও বেলাল আহমেদ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
সূত্র : বিডিনিউজ

আরও পড়ুন