খুলনায় চিকিৎসক ধর্মঘট দুই সপ্তাহ স্থগিত

আপডেট: 01:49:33 16/10/2016



img

খুলনা অফিস : খুলনায় প্রাইভেট হাসপাতাল-ক্লিনিকের চিকিৎসকদের চলমান ধর্মঘট দুই সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করে বিএমএ-এর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও খুলনা জেলা সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলম বলেন, ‘‘বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল প্রাকটিশনার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএমপিএ) এবং প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিসিডিওএ) নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে ধর্মঘট দুই সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে স্থানীয় সংসদ সদস্য, খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ও জেলা সিভিল সার্জনের সঙ্গে বৈঠক করে ‘অনৈতিক অভিযান’ বন্ধের ব্যাপারে আলোচনা করবো।’’
উল্লেখ্য, বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার র‌্যাব-১ এবং র‌্যাব-৬ যৌথভাবে গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে প্যাথলজি বিভাগ থেকে ২৩ ব্যাগ রক্ত, বিপুল পরিমাণ মেয়াদোত্তীর্ণ রি-এজেন্টসহ অন্যান্য ওষুধ এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরিবর্তে টেকনিশিয়ানের স্বাক্ষর করা প্যাথলজি রিপোর্ট উদ্ধার করে। এসব অপরাধে হাসপাতলের মালিক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. গাজী মিজানুর রহমানসহ পাঁচজনকে দশ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া ডেল্টা ফার্মেমিকেও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রির অভিযোগে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
ওই দিন খুলনা হেলথ গার্ডেন নামের একটি ক্লিনিকে র‌্যাবের অভিযানে একই সিরিঞ্জ একাধিকবার ব্যবহার ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখাসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানের মালিক খন্দকার এহসান উল্লাহকে এক লাখ এবং প্যাথলজি টেকনোলজিস্ট মো. হাফিজুর রহমানকে ম্যাজিস্ট্রেট এক লাখ টাকা জরিমানা করেন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর নিরালা এলাকায় অনুমোদনহীন ওষুধ তৈরির অপরাধে ইউনিটি ফার্মাসিউটিক্যালসকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া দৌলতপুরে বলাকা ফার্মেমিকে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এর প্রতিবাদে শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত প্রাইভেট ক্লিনিক ও ব্যক্তিগত চেম্বার বন্ধ রেখে ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট শুরু করেন চিকিৎসকরা। এতে ব্যাপক দুর্ভোগে পড়েন রোগী ও তাদের স্বজনরা।

আরও পড়ুন