খুলনায় বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশস্থলে ১৪৪ ধারা

আপডেট: 06:16:39 09/03/2018



img

খুলনা অফিস : খুলনায় আগামীকাল শনিবার বিএনপির বিভাগীয় মহাসমাবেশ ঘিরে নগরীর শহীদ হাদিস পার্কসহ আশপাশের এলাকায় সব ধরনের সভা-সমাবেশ ও মিছিল নিষিদ্ধ করেছে মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি)। শুক্রবার কেএমপির এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে শনিবার সকাল ছয়টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট এলাকায় সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ থাকবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। নগরীতে হ্যান্ড মাইকিং এবং পুলিশ ভ্যানে মাইকিংয়ের মাধ্যমে বিষয়টি প্রচার করা হচ্ছে।
কেএমপি কমিশনার মো. হুমায়ুন কবির স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘শনিবার ১০ মার্চ নগরীর শহীদ হাদিস পার্কে দুটি রাজনৈতিক দল জনসভা আহ্বান করেছে। একই স্থানে একই সময়ে পরস্পরবিরোধী দুটি রাজনৈতিক দল জনসভা আহ্বান করায় আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি ও জননিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। এ কারণে শান্তি-শৃংখলা রক্ষা ও জননিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষে কেএমপি অধ্যাদেশ-১৯৮৫-এর ৩০ ধারা অনুযায়ী নগরীর শহীদ হাদিস পার্কসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় সকল প্রকার সভা-সমাবেশ ও মিছিল নিষিদ্ধ করা হলো।’
এদিকে, এ নিষেধাজ্ঞা জারির পর শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে কেডি ঘোষ রোডে বিএনপি অফিসের সামনের সড়কে হ্যান্ড মাইকে পুলিশকে বিষয়টি প্রচার করতে দেখা যায়। এছাড়া সদর থানা থেকেও পুলিশ ভ্যানে করে মাইকিংয়ের মাধ্যমে নগরীতে বিষয়টি প্রচার করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে খুলনায় অবস্থানরত বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘২৭ ফেব্রুয়ারি আমরা হাদিস পার্কে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে কেএমপিতে আবেদন করি। কেসিসি থেকে অনুমতিও নেওয়া হয়েছে। অথচ দুইদিন আগে মহিলা আওয়ামী লীগ নাকি সেখানে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছে। এই অজুহাতে পুলিশ সেখানে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।’
‘মহিলা আওয়ামী লীগ কোনো সমাবেশ করতে চায় না। বিএনপির সমাবেশ বন্ধের জন্যই এ ধরনের অপকৌশলের আশ্রয় নেওয়া হয়েছে,’ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন নজরুল ইসলাম খান।
তিনি সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারির তীব্র নিন্দা করেন।

আরও পড়ুন