খুলনায় ১৩ শতাধিক ঈদগাহ ও মসজিদে জামাত

আপডেট: 01:08:59 05/06/2018



img

খুলনা অফিস : মহানগরীর ৩১টি ওয়ার্ড ও জেলার ৬৮টি ইউনিয়নে এক হাজার ৩৫৫টি ঈদগাহ ও মসজিদে এবার ঈদুল ফিতরের জামাত আয়োজন করা হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে প্যান্ডেল তৈরির কাজ শুরু হবে। মুসল্লিদের নিরাপত্তার জন্য প্রত্যেক ঈদগাহে পাঁচজন করে পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হবে।
জেলা প্রশাসনের সূত্র জানায়, মহানগরী এলাকায় ১৮৪টি, রূপসা উপজেলায় ১১৬টি, দিঘলিয়া উপজেলায় ৬০টি, তেরখাদা উপজেলায় ৮৭টি, ফুলতলা উপজেলায় ৭০টি, ডুমুরিয়া উপজেলায় ১৫০টি, দাকোপ উপজেলায় ১১৩টি, বটিয়াঘাটা উপজেলায় ১৬১টি, পাইকগাছা উপজেলায় ৮০টি এবং কয়রা উপজেলায় ২৩৪টি ঈদগাহ ও মসজিদে ঈদের জামাতের আয়োজন করা হয়েছে।
মহানগরীতে সকাল সাড়ে আটটায় সার্কিট হাউজে ঈদের প্রথম ও প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সকাল সাড়ে নয়টা ও সাড়ে দশটায় টাউন জামে মসজিদে জামাত হবে।
কেসিসির তত্ত্বাবধানে সার্কিট হাউজ ছাড়াও শহীদ হাদিস পার্ক, নিরালা আবাসিক এলাকা স্কুল, টাউন জামে মসজিদ, লায়ন্স স্কুল মাঠ, সোলায়মাননগর ঈদগাহ, খালিশপুর ঈদগাহ, বায়তুন-নুর জামে মসজিদে ঈদের জামাতের প্রস্তুতি চলছে।
ঈদ উৎসব সুষ্ঠুভাবে উদযাপনের জন্য গেল রোববার জেলা প্রশাসনের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নৌ-পথে দুর্ঘটনা এড়াতে ১২-২০ জুন পশুর, ভৈরব, রূপসা ও শিবসা নদীতে বালিবাহী কার্গো চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
এদিকে, সরকারি তথ্য বিবরণীতে বলা হয়েছে, ঈদের দিন সব সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ভবনে যথাযথভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে হবে এবং সূর্যাস্তের আগে তা নামাতে হবে। নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক, গুরুত্বপূর্ণ চত্বর-সড়কদ্বীপ ও সার্কিট হাউস ময়দান জাতীয় পতাকা ও ঈদ মোবারক (বাংলা ও আরবি) খচিত ব্যানার দিয়ে সজ্জিত করা হবে। ঈদ উপলক্ষে আইনশৃংঙ্খলা রক্ষার্থে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মহানগর ও মহানগরের বাইরের বিভিন্ন স্পটে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এবং পর্যাপ্ত ট্রাফিক পুলিশ নিয়োজিত থাকবে। ঈদের সময় চলাচল নির্বিঘ্ন করতে যত্রতত্র রাস্তায় ব্যানার, গেট নির্মাণ করা যাবে না। ঈদের দিন আতশবাজি ও পটকা ফোটানো, রাস্তা বন্ধ করে স্টল তৈরি, উচ্চস্বরে মাইক/ড্রাম বাজানো, লাল রঙের পানি ছিটানো এবং ভেপু বাজিয়ে মোটরসাইকেল চালানো যাবে না। পকেটমার ও অজ্ঞান পার্টি থেকে জনগণকে সচেতন রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। ঈদের সময় মহানগরীকে পরিচ্ছন্ন রাখতে সিটি করপোরেশন উদ্যোগী হবে।
র‌্যাব-৬ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান জানান, ঈদের বাজারে নিরাপত্তার জন্য ইতিমধ্যে পেট্রোল ডিউটি ও সাদা পোশাকে পাহারা শুরু হয়েছে। ঈদের দিনেও র‌্যাব টহলে থাকবে।

আরও পড়ুন