খুলনা নগরীতে বিএনপির নতুন সদস্য ১৫ হাজার

আপডেট: 01:35:57 12/03/2018



img

খুলনা অফিস : গেল বছরের সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সদস্য সংগ্রহ অভিযানে ৩১টি ওয়ার্ডে বিএনপির নতুন সদস্য হয়েছে ৩৭ হাজার। ২০১৬ সালে সদস্য সংখ্যা ছিল ২২ হাজার।
দলটির নেতারা মনে করছেন, সাংগঠনিকভাবে খুলনায় বিএনপি আরো শক্তিশালী হয়েছে। ৬৪টি মামলার পরও কর্মী-সমর্থক সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়েছে বলে দাবি নগর বিএনপির।
গত সেপ্টেম্বর মাসে মহানগর বিএনপির সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন অভিযান শুরু হয়। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী সদস্য সংগ্রহ অভিযান উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন। বিএমএ খুলনা শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডা. শেখ আখতারুজ্জামানের নতুন সদস্য পদ লাভের মধ্য দিয়ে এ অভিযান শুরু হয়। গত ছয় মাসে মহানগরীর আটটি থানা এবং ৩১টি ওয়ার্ডে কর্মিসভার মাধ্যমে নতুন সদস্য সংগ্রহ ও পুরনোদের নবায়ন করা হয়। বিশেষ করে সিটি করপোরেশন এলাকার ৭, ৯, ১০, ১২, ১৪, ১৬, ১৭, ১৮, ১৯, ২৪, ২৬, ২৭, ২৮, ৩০ এবং ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে সদস্য সংখ্যা বেড়েছে।
স্থানীয় নেতারা উল্লিখিত ওয়ার্ডগুলোকে বিএনপির ঘাঁটি বলে দাবি করেন। এই কারণে গেল সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. মনিরুজ্জামান মনি ৬০ হাজার ভোটের ব্যবধানে মেয়র নির্বাচিত হন।
নগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু জানান, গত নয় বছরে ৬৪টি মামলায় ১২২টি চার্জশিট হয়েছে। দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার নামে ফুলতলা থানায়ও একটি মামলা হয়। মহানগর এলাকায় সাড়ে ৭শ’ নেতাকর্মী এসব মামলার আসামি। বিনা অপরাধে ৮ ফেব্রুয়ারি পুলিশ বাদী হয়ে চারটি মামলা দায়ের করে বলে তার অভিযোগ।
দলটির নেতারা বলছেন, এসব মামলার উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন, নগর শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, সহসভাপতি শাহারুজ্জামান মুর্তজা, সিরাজুল ইসলাম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, ফখরুল আলম প্রমুখ।

আরও পড়ুন