খুলেছে বেনাপোল বন্দর, কর্মচাঞ্চল্য ফেরেনি

আপডেট: 04:38:53 18/06/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে টানা তিন দিন বন্ধ থাকার পর আজ সোমবার সকাল থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে। তবে ট্রাক ঢুকছে তুলনায় অনেক কম। বন্দরের কর্মচাঞ্চল্য ফিরতে সময় লাগবে।
বন্দর ও কাস্টমস সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন পেট্রাপোল বন্দর থেকে রফতানি পণ্য নিয়ে আড়াইশ’ থেকে তিনশ’ ট্রাক আসে বেনাপোল বন্দরে। আর বেনাপোল দিয়ে দেড়শ’ থেকে দুইশ’ ট্রাক রফতানি পণ্য নিয়ে যায় ভারতে। দেশের প্রায় ৭৫ ভাগ শিল্পপ্রতিষ্ঠানের কাঁচামালের পাশাপাশি বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য আসে এই বন্দর দিয়ে।
পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১৫ জুন থেকে ১৭ জুন সরকারি ছুটি থাকায় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বন্ধ ছিল। তবে ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী চলাচল ছিল স্বাভাবিক।
বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক লতা জানান, তিন দিন বন্ধ থাকার পর সোমবার সকাল থেকে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। টানা তিন দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকার পর যত ট্রাক প্রবেশের কথা ছিল সে রকম পণ্য নিয়ে ট্রাক বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেনি। এ কারণে যানজটও নেই বন্দর এলাকায়। এখনো আমদানিকারকরা ঢাকায় তাদের অফিস খোলেননি। বন্দর থেকে পণ্য খালাসও তেমন হচ্ছে না।
ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় শত শত পণ্যবাহী ট্রাক ভারতীয় বন্দর এলাকা ও বনগাঁ পার্কিংয়ে দাঁড়িয়ে আছে বলে তিনি জানান।
বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখার রাজস্ব অফিসার হারুন অর রশিদ জানান, টানা তিন দিন পর আমদানি-রফতানি শুরু হলেও কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসেনি দুই দেশের বন্দর এলাকায়।
বেনাপোল স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের পরিচালক (ট্রাফিক) আমিনুল ইসলাম বলেন, জট কমাতে দ্রুত পণ্য খালাসের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।