চাঁদপাই রেঞ্জজুড়ে সতর্কতা, সুন্দরবনে পাশ-পারমিট বন্ধ

আপডেট: 02:49:40 28/04/2016



img

খুলনা অফিস ও বাগেরহাট প্রতিনিধি : সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জজুড়ে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এক মাসের মধ্যে চার দফা আগুন লাগায় বনবিভাগের পক্ষ থেকে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষের মতে, কতিপয় দুর্বৃত্ত উপর্যুপরি আগুন লাগানোর সঙ্গে যুক্ত।
সুন্দরবনের পূর্ব বন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জ এলাকায় বৃহস্পতিবার থেকে সব ধরনের পাশ-পারমিট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক (সিএফ) জহির উদ্দিন আহম্মেদ দুপুরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
তিনি বলেন, ‘বার বার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বন বিভাগের পক্ষ থেকে চাঁদপাই রেঞ্জে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এ ছাড়া চাঁদপাই রেঞ্জের অন্তর্গত সব এলাকায় জেলে, বাওয়ালি, মৌয়াল ও সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকারও সংরক্ষিত করা হয়েছে।’
পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ বিশেষ সতর্কতা বলবৎ থাকবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, সুন্দরবনে বার বার আগুন লাগার ঘটনার কারণ উদঘাটনে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় ছয় সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। জহির উদ্দিনকে প্রধান করে গঠিত এ কমিটিকে।

এদিকে, সুন্দরবনে বার বার আগুন লাগার ঘটনার কারণ উদঘাটনে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় ছয় সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। জহির উদ্দিনকে প্রধান করে গঠিত এ কমিটিকে ১০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
এর আগে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের পাশে আড়ুয়াদেড় এলাকায় বুধবার আবার আগুন লাগে। এনিয়ে এক মাসে ধানসাগর স্টেশন এলাকায় চারবার আগুন লাগার ঘটনা ঘটল।
চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক বেলায়েত হোসেন বলেন, বুধবার বিকেল পৌনে চারটার দিকে ধানসাগর  স্টেশনের বনকর্মীরা স্টেশনের পাশে আড়ুয়াদেড় এলাকায় ধোঁয়ার কুণ্ডলী দেখতে পান। পরে তারা তা নেভানোর কাজ শুরু করেন।
তবে এই আগুন কখন কীভাবে লেগেছে তা এখনও নিশ্চিত করে বলতে পারেননি তিনি।
তারও আগে গত ২৭ মার্চ, ১৩ এপ্রিল ও ১৮ এপ্রিল ধানসাগর স্টেশনের নাংলী ক্যাম্প এলাকায় আগুন ধরে। আগুন লাগার জন্য বনবিভাগ স্থানীয় কয়েক দুর্বৃত্তকে দায়ী করে।
এ ঘটনায় দুটি মামলাও করে বনবিভাগ। তবে এখনও আসামিদের কাউকে ধরা যায়নি।
(টিআর/একে/২৮.০৪.১৬)

আরও পড়ুন