চৌগাছায় কেন্দ্র ছেড়ে চায়ের স্টলে কর্মকর্তারা

আপডেট: 03:01:18 14/02/2018



img

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : চৌগাছায় পরীক্ষা কেন্দ্রে ঠিকমতো দায়িত্ব পালন না করে দায়িত্বপ্রাপ্ত তিন অফিসারকে কেন্দ্র থেকে ৫০০ মিটার দূরে চায়ের স্টলে বসে চা পান করতে দেখা গেছে। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এই দৃশ্য দেখা যায়; যার ভিডিওচিত্র রয়েছে সুবর্ণভূমির কাছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) এসএসসি পরীক্ষার দিনে কাটগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছিলেন দুইজন কর্মকর্তা। এই কেন্দ্রটির দুটি ভেন্যু কাটগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসের (প্রকল্প কর্মকর্তা) অফিসার আনিছুর রহমান এবং কাটগড়া সাইফুল ইসলাম কলেজে একই অফিসের সহকারী পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা অনুপকুমার দায়িত্বে ছিলেন। এই কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা নেওয়া হয় কি না তা নিয়ে আগে থেকেই প্রশ্ন আছে। চলতি এসএসসি পরীক্ষায়ও এ অভিযোগ ওঠে। যদিও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কেন্দ্র সচিব এবং হল সুপাররা বরাবরই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিলেন।
অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ে গিয়ে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই কর্মকর্তাকে চায়ের স্টলে পাওয়া যায়। তারা কেন্দ্র থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে পুড়াপাড়া বাজারে একটি চায়ের স্টলে বসে চা পান করছিলেন। পরীক্ষা কেন্দ্রে কর্মকর্তাদের জন্য চা-নাস্তার ব্যবস্থা থাকার পরও প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে বসে চা পানের বিষয়টি ‘রহস্যজনক’ বলছেন স্থানীয়রা।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দায়িত্ব পেয়েও উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসার ট্রেনিংয়ে যাওয়ায় সহকারী পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা অনুপকুমারকে পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব দেওয়া হয়। উপজেলা পরিষদে অনেক প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা থাকলেও একজন প্রকল্প কর্মকর্তা এবং একজন দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তাকে কেন্দ্রের দায়িত্ব দেওয়া নিয়েও সংশ্লিষ্টদের মধ্যে প্রশ্ন রয়েছে।
জানতে চাইলে ওই কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ও কাটগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তবিবর রহমান বলেন, ‘বেলা ১২টার দিকে কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই কর্মকর্তা একটু বাইরে গিয়েছিলেন।’
তিনি বলেন, ‘তাছাড়া তারা সরকারিভাবে নিযুক্ত কর্মকর্তা। আমি তাদের বিষয়ে কিছু বলতে পারি না। তাদের ভালো-মন্দ কাজের দায়িত্বও আমার না।’
অভিযুক্ত উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা (প্রকল্প কর্মকর্তা) আনিছুর রহমান বাজারে গিয়ে চা পানের বিষয়টি স্বীকার করেন। বলেন, ‘ওই সময়ে আমি ফার্মেসিতে (ওষুধের দোকানে) গিয়েছিলাম। সেখানে একজন চা খেতে অনুরোধ করেন। আমি অনুরোধ রেখেছি।’
পরীক্ষা চলাকালে পিয়ন না পাঠিয়ে নিজে বাইরে যাওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি নয়টার মধ্যেই কেন্দ্রে পৌঁছেছি। পরীক্ষা চলাকালে কর্মকর্তারা বাইরে গেলে কোনো সমস্যা হয় কিনা এটা জানা ছিল না।’
এবিষয়ে চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইবাদত হোসেন বলেন, ‘হয়ত তারা একটু চা খেতে বাইরে গিয়েছিলেন। তবে বিষয়টি আমার জানা নেই।’
এসএসসি পরীক্ষা শুরুর আগে তিনি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে কোনো অনিয়ম হলে সংশ্লিষ্টদের ছাড় দেওয়া হবে না।’
এর আগে পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মাইকিং, মিছিল-মিটিং নিষিদ্ধ থাকলেও কেন্দ্রের পাশে মাইকিং হয়েছে। কিন্তু ইউএনও কোনো ব্যবস্থা নেননি। এনিয়ে গণমাধ্যমে খবরও প্রকাশিত হয়েছে।

আরও পড়ুন