চৌগাছায় বরজে আগুন, ক্ষতি অর্ধকোটি টাকা

আপডেট: 08:28:03 08/02/2018



img
img

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : চৌগাছায় আগুন লেগে চার বিঘা পানের বরজ পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। বরজ পুড়ে যাওয়ার খবর পেয়ে এনজিওর ঋণের দায়গ্রস্ত এক চাষি অসুস্থ হয়ে পড়েন।
বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার সাঞ্চাডাঙ্গা গ্রামের খালকান্দা মাঠে আগুনের ঘটনাটি ঘটে। এতে তিন চাষির যৌথ চাষে বরজের প্রায় অর্ধ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানান ক্ষতিগ্রস্ত চাষি আলাউদ্দীনের ছেলে সবুজ হোসেন।
সবুজ হোসেন বলেন, ‘প্রতিবিঘা পানে বছরে তিন লাখ টাকার মতো পান বিক্রি করা যায়। সেখানে চার বিঘা পানে প্রতি বছরে কম পক্ষে ১২ লাখ টাকা আসে। বরজটি আরো ১০-১২ বছর স্থায়ী হতো। সে হিসেবে কমপক্ষে অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।’
স্বরুপদাহ ইউনিয়নের দেবালয় গ্রামের পানচাষি আলাউদ্দিন বলেন, ‘প্রতিদিনের মতো বরজে কাজ করছিলাম। দুপুরে আমার গ্রামের বিশারতের ছেলে মিস্টার আসে বরজে পড় (পানের লতা) নিতে। আমি এবং মিস্টার উভয়ে বসে একসাথে বিড়ি খাই (ধূমপান করেন)। এরপর দুপুর আড়াইটার দিকে বাড়ি চলে যাই। বাড়ি যেয়েই অন্যের কাছ থেকে খবর পাই পানের বরজে আগুন লেগেছে।’
তিনি বলেন, সম্ভবত বিড়ির আগুন থেকেই বরজে আগুন লেগেছে।
আরেক চাষি আব্দুল গাফফার বলেন, ‘বিকেল তিনটার দিকে বাড়ি থেকে শুনি বরজে আগুন লেগেছে। দ্রুত এসেও আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি।’
সাঞ্চাডাঙ্গা গ্রামের দুই চাষি আব্দুল গাফফার ও রফিকুল ইসলাম এবং পাশের দেবালয় গ্রামের চাষি আলাউদ্দিন মিলে গ্রামীণ ব্যাংক, আশা, ব্র্যাকসহ বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে জমি লিজ নিয়ে পানের বরজ করেন। বরজ পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়ায় এখন তিন চাষির মাথায় হাত উঠেছে।
এদিকে, বরজ পুড়ে ছাই হওয়ার ঘটনায় চাষি রফিকুল ইসলাম অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন বলে স্থানীয়রা জানান।