ঝিকরগাছার সন্ত্রাসী রাজুর গুলিবিদ্ধ লাশ মণিরামপুরে

আপডেট: 05:28:02 07/01/2018



img

আনোয়ার হোসেন, মণিরামপুর (যশোর) : যশোরের মণিরামপুরে রাজু সরদার (৩৫) নামে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া গেছে।
রোববার সকালে থানা পুলিশ উপজেলার স্মরণপুর জয়েন্ট ইটভাটার কাছ থেকে লাশটি উদ্ধার করে। এরআগে সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে স্থানীয়রা লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন।
রাজু ঝিকরগাছার কৃষ্ণনগর গ্রামের মৃত রবিউল সরদারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের নানাবিধ অভিযোগ তুলেছেন এলাকাবাসী। তিনি গত শনিবার র‌্যাবের সঙ্গে ‌'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত পালসার বাবুর সহযোগী ছিলেন বলে স্থানীয়রা বলছেন। তবে এ বিষয়ে কেউ কেউ ভিন্নমত পোষণ করেছেন। নিহতের চোখ-মুখসহ দেহে চারটি গুলির চিহ্ন রয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে জয়েন্ট ইটভাটার কাছে সর্ষেক্ষেতে একজনের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন তারা। পরে তাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে থানা পুলিশ সকাল সাড়ে আটটার দিকে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
স্থানীয়দের ধারণা, অন্য কোথাও রাজুকে গুলি করে মেরে সেই লাশ স্মরণপুরে এনে ফেলে রাখা হয়েছে।
খেদাপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আইনুদ্দিন বলেন, ‘লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। নিহতের নাম রাজু, তার বাড়ি ঝিকরগাছায়। লাশের দেহে চারটি গুলির চিহ্ন রয়েছে।’
ঝিকরগাছা থানার ওসি আবু সালেহ মাসুদ করিম জানান, নিহত রাজু সরদার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। গত ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান শেষে ফেরার সময় নিহত আওয়ামী লীগ কর্মী মিলন হত্যাসহ ২৬টি মামলা রয়েছে তার নামে। পুলিশের ধারণা, প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত হয়েছেন রাজু সরদার।
যশোরের  সহকারী পুলিশ সুপার (মণিরামপুর-সদর সার্কেল) জামাল আল নাসের বলেন, ‘কে বা কারা রাজুকে মেরে মণিরামপুরের স্মরণপুরে ফেলে রেখে গেছে। রাজু নিহত পালসার বাবুর সহযোগী ছিল।’
জানতে চাইলে র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর জিয়া এ ঘটনা তাদের জানা নেই বলে জানান। 

আরও পড়ুন