ঝিনাইদহে গৃহবধূর লাশ নিয়ে বিক্ষোভ

আপডেট: 05:04:46 27/04/2019



img
img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহে গৃহবধূ শাপলার লাশ নিয়ে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন তার পরিবার-সদস্য, আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসী। স্বামী-শ্বশুরের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।
শনিবার শাপলার লাশ ঢাকা থেকে গ্রামে পৌঁছালে তার মরদেহ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। স্থানীয় বাসুদেবপুর বাজারে মানববন্ধনও করেন তারা।
শাপলা সদর উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে।
বাবা সিরাজুল ইসলাম জানান, তিন বছর আগে সদর উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের নাসির মণ্ডলের ছেলে নয়নের সঙ্গে বড় মেয়ে শাপলার বিয়ে দিয়েছিলেন। এরপর থেকে শ্বশুর তার মেয়েকে কুপ্রস্তাব দিত। একবার মেয়ে বাপের বাড়িতে এসে আর যেতে চায়নি। পরে তাকে বুঝিয়ে শ্বশুরবাড়ি পাঠানো হয়। এরপর গত বুধবার শাপলার শাশুড়ি মেয়ের বাড়িতে গেলে শ্বশুর শাপলাকে ধর্ষণ করতে উদ্যত হয়। সেই সময় শাপলার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন।
সিরাজুল জানান, এই ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে জামাই নয়ন মেয়েকে নির্যাতন করে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে। প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় রেফার করেন। ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে মারা যায় শাপলা।
স্থানীয় মহিলা মেম্বার লাকি খাতুন বলেন, ‘শাপলা নরম স্বভাবের মেয়ে ছিল। আগেও এমন অত্যাচার করতো। সে মুখ বুজে সহ্য করত। শাপলা হত্যার সুষ্ঠু বিচার হোক।’
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান খান জানান, এঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। যত দ্রæত সম্ভব অভিযুক্ত হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

আরও পড়ুন