ঝিনাইদহে ভুয়া চিকিৎসকের জেল-জরিমানা

আপডেট: 06:16:59 13/07/2017



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ শহরের পুরাতন হাটখোলায় মনিরুজ্জামান নামের এক ভুয়া চিকিৎসককে ৩ মাসের কারাদণ্ড ও ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিককে সুধীর বিশ্বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
বৃহস্পতিবার দুপুরে এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির। দণ্ডিত মনিরুজ্জামান যশোরের চৌগাছা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে।
আদালত সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের পুরাতন হাটখোলা এলাকার জননী ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় ভুয়া চিকিৎসক মনিরুজ্জামানকে আটক করা হয়। পরে আদালত বসিয়ে মনিরুজ্জামানকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়, অনাদায়ে আরও ১০ দিনের কারাদণ্ড দেন আদালত। এছাড়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক সুধীর বিশ্বাসকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
মনিরুজ্জামান দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে রোগীদের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন বলে জানিয়েছেন আদালতের বিচারক সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির।
ভ্রাম্যমাণ আদালতে ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডা. রাশেদা সুলতানা, মেডিকেল অফিসার ডা. প্রসেনজিৎ বিশ্বাস পার্থ, ওষুধ তত্ত্বাবধায়ক নাজমুল হাসান, জেলা পাট অধিদপ্তরের মুখ্য পরিদর্শক খান মাসুদুর রহমান ও সিভিল সার্জন অফিসের জুনিয়র স্বাস্থ্য অফিসার আব্দুর রহমানসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন