ঝিনাইদহে সড়কের দুরবস্থা, ক্ষুব্ধ জনতার মানববন্ধন

আপডেট: 09:26:20 04/07/2018



img

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : কোটি টাকার রাস্তা রক্ষণাবেক্ষণ কাজে ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের কর্মকর্তা ও ঠিকাদারের দুর্নীতি-অনিয়মের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন ভুক্তভোগীরা।
বুধবার দুপুরে ঝিনাইদহ শহরের পাগলাকানাই মোড় ও হাসান ক্লিনিকের সামনে এ কর্মসূচি পালিত হয়। এলাকার কয়েকশ মানুষ ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেন।
কর্মসূচি চলাকালে ঝিনাইদহ সওজের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো নাজমুস সাকিব সেখানে উপস্থিত হন। এসময় তিনি জনতার রোষে পড়েন। একজন সাংবাদিক তাকে রক্ষা করেন। পরে ওই প্রকৌশলী ফিরে গিয়ে অফিসের কেনা ইট-পাথর দিয়ে বড় বড় গর্ত ভরাটের উদ্যোগ নেন। কিন্তু জনতা তা প্রতিহত করেন এবং সওজের গাড়ি ফিরিয়ে দেন।
এদিকে, মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে সওজের দুর্নীতিবাজ নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম মোয়াজ্জেম হোসেন, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী তানভির আহম্মেদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. নাজমুস সাকিব, কার্যসহকারী কাজী আতিয়ার রহমান ও ঠিকাদার আমিরুল ইসলামের শাস্তির দাবিতে পাগলাকানাই মোড়ে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় ঝিনাইদহ জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা মাসুদুর রহমান, স্থানীয় দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মশিউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রাজু আহম্মেদ পল্টন, ঝিনেদা আঞ্চলিক ভাষা গ্রুপের সাব্বির আহমদ জুয়েল, মাহমুদুর আল হাসান সাগর, ব্যবসায়ী তাপস দত্ত, সাজেদুর রহমান, মুস্তাফিজুর রহমান, সাখাওয়াত হোসেন, আরিফ হাসানসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ বক্তব্য রাখেন।
তারা বলেন, ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগ হামহদ-আরাপপুর বিকল্প সড়কের ৫৩৭ মিটার ও এক হাজার ৮০০ মিটার রাস্তা জরুরিভিত্তিতে মেরামতের জন্য টেন্ডার আহ্বান করেন। প্রায় এক কোটি টাকা ব্যয়সাপেক্ষ কাজটি ১০% লেসে গত ১৪ মে খুলনার শহীদ এন্টারপ্রাইজের লাইসেন্স নিয়ে শৈলকুপার ঠিকাদার আমিরুল ইসলাম কাজটি শুরু করেন। কিন্তু কাজ করা হয় অতি নিম্নমানের। জুনের আগেই তিনি যেনতেনভাবে কাজ শেষ করে ৮৯ লাখ টাকা তুলে নেন। কিন্তু মেরামতের এক সপ্তাহের ব্যবধানে বিভিন্ন স্থানে বিটুমিন ও পাথর উঠে আগের চেয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। বর্ষা মৌসুমে ওই সব জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে যান চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে।

আরও পড়ুন