ঝিনাইদহ হাসপাতালে আগুন-আতঙ্ক, হুড়োহুড়ি

আপডেট: 08:17:21 23/04/2019



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ফায়ার এক্সটিংগুইশার পরীক্ষার সময় সৃষ্ট ধোঁয়ায় রোগীদের মধ্যে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
এসময় আতঙ্কে হাসপাতালের সব রোগী বাইরে বের হয়ে আসেন। হুড়োহুড়ি করে বের হতে গিয়ে অনেকেই আঘাত পান।
মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
ঝিনাইদহ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার দিলীপকুমার সরকার জানান, সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফায়ার সার্ভিসের কোনো অনুমতি ছাড়াই গণপূর্ত বিভাগ থেকে দেওয়া ২৯টি ফায়ার এক্সটিংগুইশার (অগ্নিনির্বাপক সরঞ্জাম) হাসপাতাল চত্বরে আগুন ধরিয়ে পরীক্ষা করছিল। এসময় সৃষ্ট ধোঁয়ায় হাসপাতালে রোগী ও তাদের স্বজনদের মধ্যে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। রোগী ও তাদের স্বজনদের অনেকেই হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে আঘাত পান।
‘পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট গিয়ে রোগীদের শান্ত করে। তবে কর্তৃপক্ষের উচিৎ ছিল ফায়ার সার্ভিসকে জানিয়ে পরীক্ষা করা এবং আগে থেকে মাইকিং করা,’ বলছিলেন ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা দিলীপ।
হাসপাতালে ভর্তি রোগীর স্বজনরা জানান, তারা হুড়োহুড়ি করে নামার সময় অনেকেই আঘাত পেয়েছেন। সব সিট ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসেন রোগীরা।
সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার আয়ুব আলী এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে জানান, অসাবধানতাবশত এমনটি ঘটেছে।
গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফিরোজ আলী বলেন, ‘আমরা ফায়ার এক্সটিংগুইশার পরীক্ষা করছিলাম। এসময় ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়লে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সৃষ্টি হয়। আমাদের অত্যন্ত ভুল হয়েছে ফায়ার সার্ভিসকে না জানিয়ে পরীক্ষা করা। ভবিষ্যতে এমন ভুল আর হবে না।’

আরও পড়ুন