ড. আসকারী ইবির ভিসি নিযুক্ত

আপডেট: 08:16:22 21/08/2016



img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন প্রফেসর ড. হারুন-উর রাশিদ আসকারী। আর কোষাধ্যক্ষ নিয়োগ পেয়েছেন প্রফেসর ড. মো. সেলিম তোহা।
রোববার বিকেল সোয়া তিনটায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাঠানো ফ্যাক্সবার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে। কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের ডেপুটি রেজিস্ট্রার ড. আমানুর আমান এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
ড. আসকারী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২তম উপাচার্য (ভিসি) হিসেবে দায়িত্ব পেলেন। গত ৩০ জুন ড. আব্দুল হাকিম সরকারকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পর ভাইস-চ্যান্সেলরের পদটি শূন্য ছিল।
নবনিযুক্ত উপাচার্য ড. আসকারী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি বাংলা ও ইংরেজি ভাষার লেখক, কলামিস্ট, কথাসাহিত্যিক ও সমাজ-রাজনীতি বিশ্লেষক। তিনি ইংরেজি বিষয়ে খ্যাতিম্যান শিক্ষক ও কৃতী গবেষক হিসেবে পরিচিত।
ড. আসকারী ১৯৬৫ সালের ১ জুন রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার আসকারপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা ছিলেন ব্রিটিশ আমলে এমএ-বিএড ডিগ্রিধারী এবং হাইস্কুলের ইংরেজি শিক্ষক।
শিক্ষাজীবনে কৃতিত্বের অধিকারী প্রফেসর আসকারী ১৯৮০ সালে রাজশাহী বোর্ড থেকে প্রথম বিভাগে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯৮২ সালে একই বোর্ড থেকে এইচএসসিতে প্রথম বিভাগসহ বোর্ডে পঞ্চম স্থান অধিকার করেন। ১৯৮৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে অর্নাস ও ১৯৮৬ সালে মাস্টার্স ডিগ্রি নেন তিনি। পরে তিনি ভারতের পুনে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০০৫ সালে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।
শিক্ষাজীবন শেষে ড. আসকারী ১৯৯০ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে লেকচারার হিসেবে যোগ দেন। একই বিভাগে ১৯৯৩ সালে সহকারী অধ্যাপক, ২০০০ সালে সহযোগী অধ্যাপক ও ২০০৫ সালে অধ্যাপক পদে উন্নীত হন। তিনি ২০০৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত সৌদি আরবের কিং খালিদ ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগে ভিজিটিং প্রফেসর পদে পাঁচ বছর কর্মরত ছিলেন তিনি। সেখানে তিনি বিভাগীয় প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
প্রফেসর আসকারী ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে মোট তিনবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৯৬ থেকে ১৯৯৭ মেয়াদে ছাত্র উপদেষ্টার দায়িত্বও পান।
১৯৯৯-২০০০ মেয়াদে তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।
ডা. আসকারী ২০১৪ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং একই বছর বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
তিনি ভারত বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটির আজীবন সদস্য।

আরও পড়ুন