তালুকদারের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ

আপডেট: 02:34:22 17/04/2018



img
img

খুলনা অফিস : খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেকের হলফনামায় তথ্য গোপনের অভিযোগ উঠেছে।
বলা হচ্ছে, তিনি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান, লিমিটেড কোম্পানির পরিচালক ও বেসরকারি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে থাকলেও হলফনামায় তা উল্লেখ করেননি।
এদিকে, উল্লিখিত অভিযোগে তালুকদার আব্দুল খালেকের মনোনয়নপত্র বাতিল করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে কেসিসি নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু এ অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগ গ্রহণ করেন সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার ও কেসিসি নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো. হুমায়ুন কবির।
লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, তালুকদার আব্দুল খালেক সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের ভাইস প্রেসিডেন্ট। একই সঙ্গে তিনি নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনির্ভাসিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং ইস্টার্ন পলিমার লিমিটেডের পরিচালক ও সর্বময় নিয়ন্ত্রণকারী। এখান থেকে তিনি নিয়মিত বিপুল টাকা আয় করেন। অথচ নির্বাচনী হলফনামায় এসব তথ্য গোপন করেছেন তিনি। এমনকি ইস্টার্ন পলিমার লিমিটেডের নেওয়া ঋণের তথ্যও তিনি হলফনামায় উল্লেখ করেননি। এছাড়া দলীয় মনোনয়নপত্রে তার ভোটার নম্বরও উল্লেখ করা হয়নি।
লিখিত অভিযোগে আরো বলা হয়, স্থানীয় সরকার নির্বাচন বিধিমালা ২০১০ এর ১২ ধারা অনুযায়ী মনোনয়নপত্রের সঙ্গে হলফনামা দাখিল করার বিধান রয়েছে। ওই হলফনামায় তথ্য গোপন করলে কিংবা মিথ্যা তথ্য প্রদান করলে তার প্রার্থিতা বাতিলের বিধান রয়েছে। অভিযোগ তদন্ত করে মনোনয়ন বাতিল এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানানো হয় মঞ্জুর পক্ষ থেকে।
এ বিষয়ে তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, ‘মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে কেনো বিএনপি এই অভিযোগ তুললো না? তারা আমার সামনে কেনো এই অভিযোগ তোলেনি?’
তথ্য গোপনের অভিযোগ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে আয়ের কোনো সুযোগ নেই। একটি পয়সাও আমি সেখান থেকে নিই না। সাউথ বাংলা ব্যাংকে আমার শেয়ার আছে। হলফনামায় শেয়ারের কথা উলে­খ আছে। আর এই ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে সম্মানি আছে। ইস্টার্ন পলিমারের সঙ্গে আগে সংযোগ ছিল, এখন নেই।’
‘বিএনপি তাদের দুর্বলতা ঢাকতে এখন আমার ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে,’ যোগ করেন তালুকদার।
অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে কেসিসির রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী বলেন, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের সময় কেউ এ ধরনের অভিযোগ করেননি। যে কারণে মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। এখন রিটার্নিং কর্মকর্তার এ বিষয়ে করণীয় কিছু নেই। বিষয়টি নির্বাচনী আপিল ট্রাইব্যুনালের এখতিয়ারে রয়েছে।

আরো পড়ুন : সম্পদের যে বিবরণ দিয়েছেন তালুকদার আব্দুল খালেক

আরও পড়ুন