দর্শনায় নয়টি সোনার বারসহ যাত্রী আটক

আপডেট: 09:02:03 11/04/2018



img

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় অভিযান চালিয়ে যশোরের বেনাপোলের শুল্ক গোয়েন্দারা নয়টি সোনার বারসহ একজনকে আটক করেছেন।
আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী আল-অমিন সরকার (৪০) নামে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়।
শুল্ক গোয়েন্দা দপ্তর খুলনার উপ-পরিচালক সাইফুর রহমান জানান, বেশ কিছুদিন ধরে তাদের কাছে খবর ছিল যে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা সীমান্ত চেকপোস্ট দিয়ে কাস্টমসের সহযোগিতায় ভারতে সোনা পাচার হচ্ছে। এমন খবরের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের রাজস্ব কর্মকর্তা ছবিরানি দত্তসহ ছয়জন সদস্য এদিন সকাল সাতটা থেকে দর্শনা ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে অবস্থান নেন। এ সময় বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী (নম্বর বিকিউ ০৪১৯১১২) যাত্রী ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামের মরহুম ফিরোজ সরকারের ছেলে আল-আমিন সরকার কাস্টমসের কাজ সেরে পাশের চায়ের দোকানে বসে চা পান করছিলেন। ওই সময় তাকে আটক করা হয়। পরে বিকেলে শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ও সাংবাদিদের উপস্থিতিতে তার দেহ তল্লাশি করে পায়ের জুতার ভেতর থেকে নয়টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়।
তবে দর্শনা কাস্টমসের ভারপ্রাপ্ত উপ-কমিশনার এএসএম আরেফিন জাহেদী বলেন, ‘আমাদের দায়িত্ব আমরা পালন করছি।’
দায়িত্ব পালন করলে কীভাবে ওই যাত্রী নির্বিঘ্নে কাস্টমসের চোক ফাঁকি দিলো, আর যশোর থেকে শুল্ক গোয়েন্দারা এসে তাকে আটক করলো- এমন প্রশ্নের জবাব না দিয়ে তিনি মোবাইল ফোন কল কেটে দেন।
শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের উপপরিচালক সাইফুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, উদ্ধার করা নয়টি সোনার বারের ওজন ৯০০ গ্রাম। যার আনুমানিক বাজারমূল্য ৪৫ লাখ টাকা। এগুলো দর্শনা কাস্টমসে জমা দেওয়া এবং আটক আল আমিন সরকারকে দামুড়হুদা মডেল থানায় সোপর্দ করে তার বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হবে বলে জানান সাইফুর।

আরও পড়ুন