দুদকও দুর্নীতিমুক্ত নয় : যশোরে ইকবাল মাহমুদ

আপডেট: 02:41:15 11/04/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, দেশে দুর্নীতি নেই- এমনটি বলার সুযোগ নেই। সরকারি সব সেবা প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি আছে। দুদকও দুর্নীতিমুক্ত নয়।
তিনি বলেন, 'দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। অনেকের চাকরি চলে গেছে। অনেকে বিভাগ ছেড়ে চলে গেছে।'
বুধবার যশোর সার্কিট হাউসে খুলনা বিভাগের শ্রেষ্ঠ জেলা ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
ইকবাল মাহমুদ বলেন, 'আমাদের বয়সী লোকদের দিয়ে সোনার বাংলা গড়া সম্ভব না। এজন্য আগামী প্রজন্মকে বেছে নিয়েছি। তাদের যদি দুর্নীতিমুক্ত করা যায়, তাহলে ২১ শতকেই বিশ্বের সমৃদ্ধশালী ১১টি দেশের মধ্যে নাম থাকবে বাংলাদেশের।'
এজন্য তিনি দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, 'কারণ আমাদের দেশেরে এক কোটি মানুষ বিদেশ থেকে যে রেমিটেন্স পাঠায়, তার চেয়ে বাংলাদেশ কর্মরত এক লাখ মানুষ বেশি টাকা নিয়ে যায়।'
তিনি আরো বলেন, 'এই দেশে কেউ আইনের উর্ধ্বে নয়। মাঝে মাঝে আমরা দুর্নীতি দমন করছি। তবে আমরা দুর্নীতি প্রতিরোধে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। কোনো এক ব্যক্তিকে জেলে দেওয়া আনন্দের বিষয় নয়। বৃহত্তর স্বার্থে আমাদের এটাও করতে হয়।'
তিনি বলেন, 'শিক্ষাব্যবস্থায় কোনোভাবেই দুর্নীতি মেনে নেওয়া হবে না। শিক্ষকদের মর্যাদা সবার ওপরে। আপনারা শিক্ষার্থীদের কোচিং সেন্টারে পাঠাতে উদ্বুদ্ধ করবেন না। আপনারা বাচ্চাদের পড়ার টেবিলে বসার ব্যবস্থা করুন। তাহলে তারা কোচিংমুখী হবে না। তারা পড়ার টেবিলে না থাকলে মাদকাসক্তিসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়বে।'
সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, 'আপনারা আইন মেনে দায়িত্ব পালন করুন। আপনাদের চাকরি কেউ খেতে পারবে না। কেউ যদি চাকরি খায় আমার কাছে যাবেন। আমি আপনাদের চাকরি বুঝে দেবো।'
খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি খুলনার রূপসা উপজেলা শাখার সভাপতি আবদুর রশিদ, কলারোয়া শাখার সভাপতি আক্তার আসাদুজ্জামান, কুষ্টিয়ার দৌলতপুর শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম, নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি মনিরুজ্জামান মল্লিক।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যশোরের জেলা প্রশাসক আবদুল আওয়াল, পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান প্রমুখ।

আরও পড়ুন