দুর্ধর্ষ আমিরুল বোমা বিস্ফোরণে নিহত

আপডেট: 08:19:25 01/12/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের বেনাপোলে একাধিক হত্যা অস্ত্র মামলার আসামি,  সন্ত্রাসী বাহিনীপ্রধান আমিরুল ইসলামকে (৪৮) বোমা বিস্ফোরণে নিহত হয়েছেন।
আমিরুল বেনাপোলের কাগজপুকুর গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে।  শাসক দলের এক নেতার প্রশ্রয়ে থেকে তিনি সন্ত্রাসী চালাতেন বলে অভিযোগ ছিল।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে আমিরুল বেনাপোল বাজার থেকে মোটরসাইকেলযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। কাগজপুকুর স্কুল মাঠের পাশে পৌঁছালে সেখানে ওত পেতে থাকা প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা তাকে লক্ষ্য করেপর পর তিনটি বোমা নিক্ষেপ করে। বোমার বিস্ফোরণে আমিরুলের মাথাসহ শরীর ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।
সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার সময় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে বলে আশপাশের লোকজন জানান। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায়।
নিহত আমিরুলের বোন রাবেয়া বলেন, ‘আমার চাচাতো ভাই সাইফুল্লাহ আমিরুলকে খুন করেছে। তার ছোড়া বোমার আঘাতে আমার ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে।’
বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম জানান, সন্ত্রাসীদের বোমা হামালায় আমিরুল মারা গেছেন। কারা এই খুনের ঘটনা ঘটিয়েছে, সে ব্যাপারে পুলিশ এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি। খুনিদের ধরতে ঘটনার পর থেকেই পুলিশি অভিযান শুরু হয়েছে।
নিহত আমিরুলের বিরুদ্ধে চৌগাছার সিংহঝুলি ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু হত্যা, বেনাপোলের আওয়ামী লীগ নেতা সামাদ হত্যা, বেনাপোল পোর্টসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক হত্যা অস্ত্র, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে।
যশোরের পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, আমিরুল নিজেই বোমা বহন করছিলেন। কাছে থাকা বোমা বিস্ফোরণে তার মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

আরও পড়ুন