নিখোঁজের পাঁচদিন পর ইছামতিতে গৃহবধূর লাশ

আপডেট: 09:10:03 10/01/2017



img

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : কলারোয়ায় নিখোঁজ হওয়ার পাঁচদিন পর সীমান্তবর্তী চান্দুড়িয়া গ্রাম-সংলগ্ন ইছামতি নদী থেকে আমেনা নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে স্থানীয় লোকজন ওই গৃহবধূর লাশ ইছামতি নদীতে ভাসতে দেখে ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মনিকে জানান। তার কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
আমেনা চান্দুড়িয়া গ্রামের ওমর আলীর স্ত্রী। এ ঘটনায় পুলিশ নিহত গৃহবধূর শাশুড়ি আনোয়ারা খাতুনকে আটক করেছে। তবে স্বামী-শ্বশুরসহ পরিবারের অন্যরা পালিয়ে গেছেন।
এলাকাবাসী জানান, মাস দুয়েক আগে উপজেলার সীমান্তবর্তী গোয়ালপাড়া গ্রামের আব্বাস উদ্দিনের মেয়ে আমেনা খাতুনের (১৮) সঙ্গে পাশের চান্দুড়িয়া গ্রামের দ্বীন মোহাম্মদের ছেলে ওমর আলির বিয়ে হয়। বিয়ের পর আমেনা খাতুন শ্বশুরবাড়িতে অবস্থান করছিলেন। গত শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে ওই বাড়িতে তাকে আর পাওয়া যায়নি।
মেয়ে নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় শনিবার আমেনার বাবা আব্বাস উদ্দিন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। অপরদিকে শ্বশুরবাড়ির পক্ষ থেকে কিছুটা ভিন্ন আঙ্গিকে থানায় আরেকটি অভিযোগ করা হয়। মঙ্গলবার সকালে নিখোঁজ হওয়ার পাঁচ দিন পর সীমান্তবর্তী ইছামতি নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার হলো।
কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এমদাদুল হক শেখ জানান, গৃহবধূ আমেনার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলা হয়নি বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন