নড়াইলে টিসিবির পণ্য উঠিয়েছেন মাত্র ৯ ডিলার

আপডেট: 08:22:41 04/05/2019



img

মৌসুমী নিলু, নড়াইল : পবিত্র রমজান উপলক্ষে সরকার টিসিবির মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে নিত্যপণ্য বিক্রির ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু নড়াইল জেলায় ৩৫ ডিলারের মধ্যে মাত্র নয়জন ডিলার পণ্য উত্তোলন করেছেন। এখনো কালিয়া উপজেলার কোনো ডিলার পণ্য উত্তোলন করেননি।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় কিছু পণ্যের মূল্য স্বাভাবিক রাখতে এবং সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে ২৩ এপ্রিল থেকে টিসিবি পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। জেলায় বর্তমানে ৩৫ জন টিসিবি ডিলার রয়েছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১৫ জন, লোহাগড়া উপজেলায় ১৪ জন এবং কালিয়ায় রয়েছেন ছয়জন। এদের মধ্যে সদরে তিনজন এবং লোহাগড়া উপজেলায় ছয়জন ডিলার পণ্য উত্তোলন করেছেন।
এবার কেজি প্রতি টিসিবির সয়াবিন তেলের মূল্য ৮৫ টাকা, ছোলা ৬০ টাকা, চিনি ৪৭ টাকা, মশুর ডাল ৪৪ টাকা এবং খেজুর ১৩৫ টাকা দাম ধার্য করা হয়েছে। তবে খেজুরের চালান এখনো আসেনি। প্রতি বরাদ্দে একজন ডিলার এক হাজার লিটার সয়াবিন তেল, এক হাজার কেজি চিনি, ৫০০ কেজি ছোলা এবং ৪০০ কেজি মশুর ডাল উত্তোলন করতে পারবেন।
মেসার্স শেখ প্রান্তর এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী টিসিবির ডিলার শেখ শামসুজ্জামান খোকন বলেন, ‘রমজান উপলক্ষে ভ্রাম্যমাণ ট্রাকে করে গত ২৫ এপ্রিল টিসিবি পণ্য বিক্রি শুরু করেছি। খেজুর ছাড়া বাকি পণ্য খুচরা বাজার থেকে মূল্য কম থাকায় এবার টিসিবি পণ্যের চাহিদা থাকবে।’
তবে কেনো কিছু ডিলার পণ্য তুলছেন না- এ প্রশ্নে তিনি বলেন, টিসিবর পণ্যে লাভ কম এবং আনুসঙ্গিক খরচ বেশি। যারা স্থায়ী মুদি ব্যবসায়ী, তাদের পক্ষে টিসিবির পণ্য আনা এবং বিক্রি করা সহজ। আর সারা বছর অন্য কোনো ব্যবসা না করে শুধু ঈদের আগে দুই বার টিসিবি পণ্য এনে খুব একটা লাভ হয় না। ফলে টিসিবির ডিলাররা পণ্য তুলতে চান না।
টিসিবির খুলনা বিভাগীয় প্রধান মো. রবিউল মোর্শেদ বলেন, গত বছর নড়াইল জেলায় মোট ৪০ জন ডিলার ছিলেন। এর মধ্যে গত বছর পণ্য উত্তালন না করাসহ বিভিন্ন কারণে পাঁচজনের লাইসেন্স বাতিল করা হয়। বর্তমানে ৩৫ জন ডিলার রয়েছেন। এর মধ্যে মাত্র নয়জন ডিলার টিসিবির পণ্য উত্তোলন করেছেন।
নড়াইল জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, দু’এক দিনের মধ্যে টিসিবি ডিলারদের নিয়ে মিটিং হবে। মিটিংয়ে ডিলারদের পণ্য উত্তোলনের জন্য বলা হবে। যদি কোনো ডিলার পণ্য উত্তোলন না করেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন