নড়াইলে শুটকির রমরমা কারবার

আপডেট: 08:58:35 01/01/2017



img
img

হাফিজুল নিলু, নড়াইল : নড়াইল সদর উপজেলার সোলুয়ার বিলে খাল পাড়ে গড়ে উঠেছে দেশি পুঁটি মাছের শুটকিপল্লি। প্রতিদিন বিভিন্ন বিল-খাল থেকে দেশি পুঁটি এনে রোদে মাচা বা চাতালে শুকানো হচ্ছে। ভালো দামে এসব মাছ জেলার বাইরে এবং ভারতে রফতানি হচ্ছে। শুটকির খরচ কম হওয়ায় প্রতি বছর এ ব্যবসার পরিধি বাড়ছে। বর্তমানে এখানে প্রতি বছর প্রায় ১৫০ কোটি টাকার মাছ শুকিয়ে কেনা-বেচা হচ্ছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার মাইজপাড়া ইউনিয়নের কল্যাণখালি গ্রামে গড়ে উঠেছে এ শুটকিপল্লি। ১২ বছর আগে কল্যাণখালি গ্রামের অলোক মালো স্থানীয় সোলুয়া, আড়ংগাছাসহ কয়েকটি বিল থেকে আহরণ করা দেশি পুঁটি মাছ শুকিয়ে তা বিক্রি করা শুরু করেন। সেই থেকে এখানে শুটকির ব্যবসা শুরু।
এখন নড়াইল ছাড়াও মাদারীপুর, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ ও মাগুরা জেলা থেকে ব্যবসায়ীরা এসে এ ব্যবসায় যুক্ত হয়েছেন।
সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রথমে হাট-বাজার থেকে মাছ কিনে এনে খালের পানিতে ধুয়ে বাঁশের মাচা করা চাতালে এক সপ্তাহ থেকে পনের দিন (রোদ বুঝে) শুকাতে হয়। তারপর বস্তাবন্দি করে বিক্রির জন্য প্রস্তুত করা হয়। বাংলা কার্তিক মাস থেকে শুরু করে সাড়ে চার মাস এই ব্যবসা চলে।
স্থানীয় কল্যাণখালি গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী অলোক মালো জানান, এবার তিনি ২৫০ মণ দেশি পুঁটি মাছ শুকিয়েছেন। খুলনা, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুরসহ বিভিন্ন জেলার ব্যাপারিরা এসে এ মাছ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। কাঁচা মাছ প্রতি মণ ৫০০ থেকে শুরু করে পাঁচ হাজার টাকা দরে কেনেন এবং শুকিয়ে সাড়ে ছয় হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা মণ দরে বিক্রি করে থাকেন।
মাগুরার ব্যবসায়ী মিরাজুল বিশ্বাস জানান, এ ব্যবসায় প্রতি বছর কমপক্ষে দশ লাখ টাকা বিনিয়োগ করতে হয়। খরচ বাদে লাভ একেবারে খারাপ থাকে না।
মাদারীপুরের মাছ ব্যবসায়ী ফারুক ব্যাপারি বলেন, ‘প্রায় আড়াই মাস আগে কর্মীসহ পাঁচজন এসেছি। ব্যবসা মাঘ মাস পর্যন্ত চলবে। ইতিমধ্যে দুইবার মাছ বিক্রি করেছি। আমরা এসব মাছ ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ভারতে পাঠাই।’
গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর এলাকার ব্যবসায়ী শহিদুল বিশ্বাস বলেন, ‘মাছ শুকানোর পর সাধারণত ছোট-বড় দুটি গ্রেড করা হয়। বড় গ্রেডের মাছের দাম বেশি।’
ফরিদপুরের মুসা ব্যাপারি বলেন, ‘সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক নিয়মে এ শুটকি করা হয়। কোনো প্রকার মেডিসিন ব্যবহার করা হয় না। প্রতি বছর এখানে আনুমানিক দেড় কোটি টাকার লেনদেন হয়।’
মাছ কিনতে আসা মহাজন মাদারীপুরের সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘৩০ বছর ধরে আমি এ ব্যবসায় জড়িত। শুটকি মাছ কিনে দেশের কয়েকটি জায়গাসহ ভারতে বিক্রি করি। প্রধানত এ মাছের বাজার ভারতে।’

আরও পড়ুন