নড়াইলে হ্যান্ডকাপসহ হত্যা মামলার আসামির পলায়ন

আপডেট: 08:21:35 15/07/2017



img

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের কালিয়ায় পুলিশের হেফাজত থেকে হ্যান্ডকাপ পরা অবস্থায় সুমন মুন্সি নামে হত্যা মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত এক আসামি পালিয়ে গেছে। গত শুক্রবার রাত আটটার দিকে উপজেলার চাঁচুড়ী বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়েও সুমনকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।
আসামি সুমন উপজেলার বনগ্রামের মো. মুজিবুর রহমান সেখ হত্যা মামলার আসামি। সুমন এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীও। সে একই গ্রামের রেজাউল করিম মুন্সির ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পুরুলিয়া এলাকা থেকে সুমন মুন্সিকে আটক করেন এসআই আতিক। এরপর মোটরসাইকেলে করে তাকে কালিয়া থানায় নিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে চাঁচুড়ী বাজারের মিল্টন মোল্লার মুদি দোকানের কাছে পৌছুঁলে নড়াইলগামী একটি যাত্রীবাহী বাসকে দিতে গিয়ে মোটরসাইকেলের গতি কমান এসআই আতিক। এ সুযোগে সুমন লাফ দিয়ে হ্যান্ডকাপসহ পালিয়ে যায়।
প্রত্যক্ষদর্শী আবদুল হাই মোল্লা বলেন, আমাদের সামনেই আসামি মোটরসাইকেল থেকে লাফ দেয়। এরপর হাত উচু করে দৌঁড়ে পূর্বদিকে পালিয়ে যায়। পুলিশ তাকে ধাওয়া করলেও আটক করতে পারেনি।
এ প্রসঙ্গে কালিয়া থানার এসআই আতিকুজ্জামান জানান, তিনিসহ সংগীয় পুলিশ সুমনকে গ্রেফতারের জন্য তাড়া করেছিলেন। কিন্তু গ্রেফতার করতে পারেনি। রাতের অন্ধকারে সে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
প্রসঙ্গত, এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২০০৯ সালের জুনে মো. মুজিবুর রহমান সেখকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে সুমন মুন্সিসহ একদল দুর্বৃত্ত। এরপর ২৯ জুলাই যশোর কুইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ ঘটনায় সুমন মুন্সি ও তার বাবাসহ ১০ জনকে আসামি করে কালিয়া থানায় মামলা হয়। ওই মামলায় আদালত সুমনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

আরও পড়ুন