পাঁচ বছরের জেলই শেষ না, অপেক্ষা করেন : হানিফ

আপডেট: 08:23:41 13/02/2018



img
img

মাগুরা প্রতিনিধি : আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, খালেদা জিয়ার একটি মামলায় শুধু পাঁচ বছর জেল হয়েছে। অপেক্ষা করেন, আরো মামলা আছে। এই পাঁচ বছরই শেষ না, আরো বছর আছে।
তিনি বলেন, ‘পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা, গ্রেনেড হামলাসহ যে অপকর্ম খালেদা জিয়া করেছেন তার জন্য শাস্তি তাকে পেতেই হবে। শুধু খালেদা জিয়া না, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক তারেক রহমানকেও দেশের মাটিতে এনে বিচারের আওতায় আনা হবে। এ জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে।’
মঙ্গলবার দুপুরে মাগুরা শহরের নোমানী ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত কর্মিসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।
কর্মিসভায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তানজেল হোসেন খানে সভাপতিত্ব করেন।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ।
অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সঈদ আল মাহমুদ স্বপন, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট বীরেন শিকদার, মেজর জেনারেল (অব.) এটিএম আব্দুল ওয়াহহাব, কামরুল লাইলা জলি, কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য পারভীন জামান কল্পনা, জেলা সাধারণ সম্পাদক পংকজ কুণ্ডু, প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাজী জাফর উল্লাহ বলেন, ‘বিএনপি দোষারোপ করলেও খালেদা জিয়ার জেলের ব্যাপারে বর্তমান সরকারের কোনো ভূমিকা নেই। কারণ দশ বছর আগে এতিমের টাকা আত্মসাতের জন্য তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার খালেদা জিয়ার নামে এ মামলা করেছিল। দশ বছর ধরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মামলায় রায় হয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ প্রায় দশ বছর ক্ষমতায় রয়েছে। সরকারের ভূমিকা থাকলে অনেক আগেই তার সাজা হতে পারতো।’
অজুহাত তুলে আগামী নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপি-জামায়াতের আর অস্তিত্ব থাকবে না বলে মন্তব্য করেন জাফরউল্লাহ।
তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার দেশের সকল মানুষের অন্ন ও বস্ত্রের ব্যবস্থা করেছে। আগামীতে ক্ষমতায় গেলে সকল মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা করবে।’
উন্নয়ন অগ্রগতির স্বার্থে দেশবাসীকে আগামী নির্বাচনে নৌকার পক্ষে থাকার আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের এই প্রেসিডিয়াম সদস্য।

আরও পড়ুন