পিকনিক ট্রাজেডি দিবস আজ

আপডেট: 02:58:02 15/02/2018



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : আজ বৃহস্পতিবার পিকনিকফেরত স্কুলবাস দুর্ঘটনার বার্ষিকী। ২০১৪ সালের এই দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় পড়ে বেনাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবাহী একটি বাস; প্রাণ যায় নয় শিশু শিক্ষার্থী। আহত হয় আরো ৪৭ জন। স্বজনদের আহাজারি, বন্ধুদের কান্নার রোলে বেনাপোলের আকাশ বাতাস ভারি হয়ে ওঠে।
নিহত শিশু শিক্ষার্থীদের স্মরণে বেনাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌরসভা নির্মাণ করেছে একটি স্মৃতিস্তম্ভ।
শোক দিবসের চতুর্থ বর্ষকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করতে বেনাপোল পৌরসভার উদ্যোগে আজ সকালে স্থানীয় ফুটবল মাঠ থেকে শোক র‌্যালি বের হবে বেনাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় অভিমুখে। সেই নয়জন শিশু শিক্ষার্থীর স্মৃতিবিজড়িত ভাস্কর্যে ফুল নিবেদন, আলোচনা সভা, দোয়া, মিলাদ মাহফিল হবে। বেনাপোলের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সামাজিক, পেশাজীবী, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন এ কর্মসূচিতে। এছাড়াও সব সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে এদিন। আলোচনা সভায় উপস্থিত থাকবেন পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন।
২০১৪ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি বেনাপোল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষকরা পিকনিকে (শিক্ষা সফর) গিয়েছিলেন মুজিবনগরে। সেখান থেকে বেনাপোলে ফেরার পথে চৌগাছার ঝাউতলা কাদবিলা পুকুর পাড়ে দুর্ঘটনায় পড়ে তাদের বহনকারী বাস। এতে নিহত হয় নয়জন; আহত হয় আরো ৪৭ জন শিশু শিক্ষার্থী।
নিহতরা হলো, বেনাপোল পৌরসভার ছোটআঁচড়ার সৈয়দ আলীর দুই মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী সুরাইয়া (১০) ও তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী জেবা আক্তার (৮), একই এলাকার ইউনুস আলীর মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী মিথিলা (১০), রফিকুল ইসলামের মেয়ে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী রুনা আক্তার মীম (৯), লোকমান হোসেনের ছেলে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শান্ত (৯), গাজিপুরের সেকেন্দার আলীর ছেলে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র সাব্বির হোসেন (১০), নামাজ গ্রামের হাসান আলীর মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী আঁখি (১১), ছোটআঁচড়ার মনির হোসেনের ছেলে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ইকরামুল (১১) এবং একই গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী ইয়ানুর রহমান (১১)।

আরও পড়ুন