পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইয়ের চেষ্টা, চৌগাছায় আটক ৩

আপডেট: 02:51:56 15/05/2018



img

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : চৌগাছায় পুলিশ পরিচয়ে মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের সময় এলাকাবাসীর সহায়তায় তিন যুবককে গ্রেফতার করেছে চৌগাছা থানা পুলিশ। সোমবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে চৌগাছা-ব্যাঙদা ভায়া কাবিলপুর সড়কের মশ্মমপুর মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।
আটক ছিনতাইকারীরা হলেন, যশোর সদর উপজেলার ফরিদপুর বাজারপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে আমিরুল ইসলাম (২৫), একই গ্রামের মুস্তাফিজুর রহমান দুলুর ছেলে মুশফিকুর রহমান (২৫) এবং ঝিকরগাছা উপজেলার বড়কুলি-কায়েমকোলা গ্রামের আমিনুর রহমানের ছেলে ইনজামামুল হক ইমন (২৪)।
চৌগাছা থানায় বসে ভুক্তভোগী মো. সায়েম জানান, সোমবার সন্ধ্যায় চৌগাছার ডিভাইন গার্মেন্ট ফ্যাক্টরি থেকে অফিস শেষে তিনি ও তার স্ত্রী লতা নতুন রোডমাস্টার একটি মটরসাইকেলে চড়ে নিজ বাড়ি শার্শা উপজেলার কাশিপুর যাচ্ছিলেন। চৌগাছা-ব্যাংদা ভায়া কাবিলপুর সড়কের মশ্মমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছুলে পুলিশ পরিচয় দিয়ে ওই তিনজন তাদের থামার সংকেত দেন। থামলে তাদের কাছে কাগজপত্র চাওয়া হয়। তারা শো-রুমের কাগজ বের করলে ওই তিন ব্যক্তি বলেন, ‘কাগজ ঠিক নেই। এই গাড়ি থানায় নাও।’
‘পুলিশ পরিচয়দানকারীদের বয়স ও গড়ন দেখে আমাদের সন্দেহ হয়। এসময় একটি ট্রাক কাবিলপুরের দিক থেকে চৌগাছা আসছিল। আমি ও আমার স্ত্রী লতা ওই ট্রাকটির সামনে গিয়ে চিৎকার করে জীবন বাঁচানোর আবেদন করি। এসময় ট্রাকের ড্রাইভার ও হেলপার ছাড়াও চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এবং ২-৩শ মিটার দূরে থাকা শাহাজাদপুর বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা এগিয়ে এসে ওই তিন যুবককে আটকে ফেলে।’
তিনি জানান, কিছুক্ষণ পর সেখানে নিয়মিত টহলে থাকা দশপাকিয়া পুলিশ ক্যাম্পের এসআই শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ উপস্থিত হয়। পরে ওই তিনজনকে চৌগাছা থানায় নিয়ে আসা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই তিন যুবক ছিনতাইয়ের ঘটনা স্বীকার করে নেয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। সড়কটির ওই স্থানে প্রায়ই ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটায় সেখানে নিয়মিত পুলিশি টহলের ব্যবস্থা রয়েছে।
দশপাকিয়া পুলিশ ক্যাম্পের এসআই শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘স্থানীয়রা তিন ছিনতাইকারীকে আটক করার পর সেখানে বিজিবিও উপস্থিত হয়। পরে আমরা সেখানে উপস্থিত হয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসি।’
চৌগাছা থানার ওসি খন্দকার শামীম উদ্দিন ঘটনা নিশ্চিত করে জানান, আটক তিনজনের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন