প্রেমিকার মৃত্যু সইতে না পেরে প্রেমিকের আত্মহত্যা

আপডেট: 05:23:46 27/04/2018



img

মাগুরা প্রতিনিধি : প্রেমিকার আত্মহত্যার তিন দিনের ব্যবধানে মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার রাজপাট গ্রামে রিপন শিকদার (২৭) নামে এক উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। রিপন ও তার প্রেমিকা প্রীতিকণা বিশ্বাস (২৪) দুইজনই মাগুরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পদে চাকরিরত ছিলেন।
রাজাপুর ইউনিয়ন পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই আব্দুল খালেক হাওলাদার জানান, রিপন ও প্রীতির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। যা নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য ও পারিবারিক দ্বন্দ্ব চলছিল। মনোমালিন্যের সূত্র ধরে এক মাস মাস আগে প্রীতির মোবাইল নাম্বার বøাক লিস্ট করে দেন রিপন। ক্ষোভে ভিক্সল জাতীয় তরল ডিটারজেন্ট পান করেন প্রীতি। দীর্ঘ ২৮ দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে গত ২৩ এপ্রিল তিনি মারা যান। এই শোক সইতে না পেরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রিপন নিজ গ্রামের মাঠের মধ্যে একটি গাছে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এ সময় তার পকেট থেকে একটি চিঠি উদ্ধার হয়। যেখানে লেখা ছিল ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয় ও জান আমাকে ক্ষমা করো’।
এসআই খালেক জানান, পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই শুক্রবার দুপুরে স্থানীয় শ্মশানে রিপনের শেষকৃত সম্পন্ন হয়েছে।
রিপনের বাবা নির্মল শিকদার, প্রীতির বাবা অমল বিশ্বাসের সঙ্গে আলাপ করেও রিপন ও প্রীতির সম্পর্কের সত্যতা মিলেছে। তবে তারা জানিয়েছেন, পারিবারিকভাবে তাদের সম্পর্ক মেনে নিয়ে আগামী শ্রাবণ মাসে বিয়ের দিন ঠিক করা হয়েছিল। তবু কেনো তারা এই পথে গেল বুঝতে পারছেন না।
ফরিদপুর কৃষি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে কৃষি ডিপ্লোমা ডিগ্রি নিয়ে তারা ২০১৭ সালে সরকারি ওই চাকরি নিয়েছে বলে উভয়ের পরিবার জানায়।
রিপন শিকদার মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার রাজপাট গ্রামের নির্মল শিকদারের ছেলে। প্রীতি শ্রীপুর উপজেলার চিলগাড়ি গ্রামের অমল বিশ্বাসের মেয়ে। চাকরি সূত্রে মাগুরা শহরের নতুন বাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন তিনি।

আরও পড়ুন