ফের আন্দোলনে নামছেন ননএমপিও শিক্ষকরা

আপডেট: 09:01:25 09/06/2018



img

রূপক মুখার্জি, (লোহাগড়া) নড়াইল : বর্তমান সরকারের শেষ বাজেটে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য অর্থ বরাদ্দ থাকবে বলে ধারণা ও বিশ্বাস ছিল সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের। কিন্তু ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে এ সংক্রান্ত কোনো ঘোষণা নেই। তা ছাড়া, অর্থমন্ত্রী এ বিষয়ে কোনো কথাও বলেননি। এর ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন ‘বঞ্চিত’ ভাবা শিক্ষকরা।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষক সমিতির নেতারা গত শুক্রবার ঢাকায় রূদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন। বৈঠকে এমপিওভুক্তির জন্য ফের আন্দোলন-সংগ্রাম করার সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
গত ৭ এপ্রিল জাতীয় সংসদে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে শিক্ষা খাতে ৫৩ হাজার ৫৪ কোটি টাকার বরাদ্দের প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত; যা খাতওয়ারী বাজেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।
বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী জানান, শিক্ষার মোট ৫৩ হাজার ৫৪ কোটি টাকার বাজেটের মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা খাতে ২২ হাজার ৪৬৬ কোটি টাকা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগে ২৪ হাজার ৮৮৮ কোটি টাকা এবং কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগে পাঁচ হাজার ৭০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী কোনো বক্তব্য না দেওয়ায় হতাশ হন এমপিওবহির্ভূত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা।
নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির কার্যক্রম দীর্ঘ দশ বছর বন্ধ রয়েছে। এ কারণে এমপিওবহির্ভূত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা তাদের দাবি-দাওয়া আদায়ের জন্য দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিলেন। আন্দোলনের এক পর্যায়ে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালনকালে অনেক শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে গণভবন প্রতিনিধি এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন উপ-সচিবের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল আন্দোলনরত শিক্ষকদের দাবি পূরণের বিষয়ে আশ্বাস দেন এবং শিক্ষকরা ক্লাসে ফিরে যান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসের পরও নতুন প্রস্তাবিত বাজেটে এমপিওভুক্তির বিষয়ে কোনো বরাদ্দ না নেই।
এ ব্যাপারে নড়াইলের লোহাগড়ার আমাদা আদর্শ কলেজের প্রভাষক মনিরুল ইসলাম ও সমীর বিশ্বাস বলেন, প্রধানমন্ত্রী যখন কোনো বিষয়ে আশ্বাস বা প্রতিশ্রুতি দেন, তখন সেই বিষয়টি সরকারের এখতিয়ারভুক্ত হয়। অথচ, এ বিষয়ে বাজেটে কোনো ঘোষণা নেই। এতে তারা বিস্মিত ও হতাশ।
প্রসঙ্গত, ২০১০ সালের পর থেকে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি বন্ধ থাকায় আন্দোলন করার জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষকরা রাজপথে নেমেছিলেন।

আরও পড়ুন