বদলে যাচ্ছে সেবিকাদের পোশাক

আপডেট: 03:51:47 27/11/2016



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারি চিকিৎসা সেবা প্রতিষ্ঠানের সেবিকাদের পোশাকে পরিবর্তন আসছে। আগামী বছরের শুরু থেকে সাদা শাড়ির বদলে তাদেরকে পরতে হবে জলপাই রংয়ের শার্ট ও কালো প্যান্ট। সঙ্গে থাকবে জুতা এবং জলপাই রংয়ের সাদা বর্ডারের টুপি।
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নার্সিং শাখার সিনিয়র সহকারী সচিব মো. লুৎফর রহমান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত পরিপত্র গত বৃহস্পতিবার যশোর জেনারেল হাসপাতালে এসেছে। যার স্মারক নম্বর-৪৫.১৫৮.১১৬.০০.০০.০৪১.২০১৩-৫০০। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. শ্যামলকৃষ্ণ সাহা।
তিনি বলেন, ‘চিঠি হাতে পেয়েছি। পোশাকের ক্যাটালগ ৪-৫ দিনের মধ্যে আসবে। ২০১৭ সালের প্রথম দিন থেকে সেবিকারা নতুন পোশাক পরে কাজ করবেন।’
পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের নিদের্শনা অনুযায়ী আগামী পহেলা জানুয়ারি থেকে নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ ও লেকচারার, সেবা তত্ত্বাবধায়ক, উপ-সেবা তত্ত্বাবধায়ক, নার্সিং ইনস্ট্রাক্টররা পুরনো পোশাকের বদলে পড়বেন জলপাই রঙের পাড়বিহীন শাড়ি অথবা শার্ট, একই রঙের ব্লাউজ, কালো প্যান্ট, কালো পাম্প শু, সঙ্গে সাদা অ্যাপ্রোন ও কালো নেমপ্লেট। জেলা পাবলিক হেলথ নার্সদের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে হালকা বেগুনি রঙের পাড়বিহীন শাড়ি অথবা শার্ট, একই রঙের ব্লাউজ, কালো প্যান্ট, কালো পাম্প শু, সঙ্গে সাদা অ্যাপ্রোন ও কালো নেমপ্লেট। এছাড়া সিনিয়র, জুনিয়র নার্স ও স্টাফ নার্স, সহকারী নার্সরা পরবেন জলপাই রঙের শার্ট ও টুপি, কালো প্যান্ট, কালো পাম্প শু, সঙ্গে ও কালো নেমপ্লেট।
হাসপাতালে কর্তব্যরত সেবিকারা জানান, নতুন এই পোশাক সম্বন্ধে মন্তব্য করতে রাজি হননি।
তবে যশোর জেনারেল হাসপাতালের উপ সেবা তত্ত্বাবধায়ক রওশন আরা বলেন, ‘নিদের্শনা হাতে পেয়েছি। পোশাকের ক্যাটালগ না পাওয়া পর্যন্ত হাসপাতাল থেকে কোনো নির্দেশনা জারি করা হবে না। সবাইকেই নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী পোশাক পরতে হবে।’
হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. শ্যামলকৃষ্ণ সাহা বলেন, ‘পোশাকের ক্যাটালগ আনতে নার্সিং সুপারভাইজার ৪-৫ দিনের মধ্যে ঢাকায় যাবেন। আশা করি ২০১৭ সালের প্রথম দিন থেকে সেবিকারা নতুন পোশাক পরে কাজ করবেন।’

আরও পড়ুন