বাঘারপাড়ায় বাবাকে হত্যার পর ছেলের আত্মহত্যা

আপডেট: 08:11:57 13/07/2017



img
img

স্টাফ রিপোর্টার ও বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি : বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোরের বাঘারপাড়ায় তুচ্ছ ঘটনায় বাবাকে খুন করে ছেলে নিজেই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক যুবক।
স্থানীয় ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, দুপুর দেড়টার দিকে বাঘারপাড়া উপজেলার জামালপুর এলাকায় জমিজমা সংক্রান্ত ঘটনায় বাবা রোস্তম আলী সর্দারের (৬০) সঙ্গে ছেলে সোহাগের (৩০) কথা কাটাকাটি হয়। উত্তেজনার একপর্যায়ে সোহাগ হাতের পাশে থাকা একটি কোদাল দিয়ে তার বাবার মাথায় আঘাত করেন। এতে তিনি মারাত্মক আহত হলে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে তিনি মারা যান।
অপরদিকে, অনুশোচনায় দগ্ধ সন্তান সোহাগ তাদের বাড়ির পশ্চিম পাশে একটি বাগানের মধ্যে আমগাছে গামছা দিয়ে গলায় ফাঁস দেন। তার কাছে একটি মোবাইলফোন ছিল। সেই ফোনে রিংকল শুনে প্রতিবেশী এক মহিলা সেখানে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় সোহাগের লাশ দেখতে পেয়ে বাড়িতে খবর দেন।
পরে বাঘারপাড়া পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।
স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্য রেহেনা পারভীন জানান, রোস্তম আলীর সেজছেলে সোহেল বছর আট আগে নিজইচ্ছায় বিয়ে করেন। সম্প্রতি সেই ছেলেকে বাড়ির পাশে একটি জমিতে তার ঘর করে দিতে চেয়েছিলেন তিনি। এই ঘটনায় সোহাগের সঙ্গে আজ দুপুরে তার কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।
হাসপাতালের ইন্টার্ন ডাক্তার মাসুদুল ইসলাম জানান, মাথায় গুরুতর আঘাতের কারণে রোস্তম আলীর মৃত্যু হতে পারে।
জানতে চাইলে বাঘারপাড়া থানার ওসি মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, জমিজমার নিয়ে বাবা ও সন্তানের মধ্যে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে ছেলে কোদাল দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। এতে তিনি মারা যান। অপরদিকে, বাবাকে মারার অনুশোচনায় ছেলেও গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা এবং একটি অপমৃত্যু হবে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন