বিদ্যুতায়িত হয়ে লাইনম্যান নিহত

আপডেট: 01:20:21 26/08/2019



img

স্টাফ রিপোর্টার : বিদ্যুত সংযোগ লাইনে কাজ করার সময় জালাল ফকির (৪৭) নামে একজন লাইনম্যান মারা গেছেন।
মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে যশোর শহরতলীর খোলাডাঙ্গা এলাকায় আয়েশা আবেদ ফাউন্ডেশনে নয়া বিদ্যুত লাইন সংযোগ দেওয়ার সময় বিদ্যুতায়িত হয়ে তিনি মারা যান।
ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি-ওজোপাডিকো শ্রমিক কর্মচারী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর বলেন, আজ দুপুরে খোলাডাঙ্গা এলাকায় আয়েশা আবেদ ফাউন্ডেশন নামে একটি প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুতের নতুন একটি সংযোগ দিতে গিয়েছিলেন ইঞ্জিনিয়ার রবিউল করিম, লাইনম্যান জালাল ফকিরসহ বিদ্যুত বিভাগের কর্মীরা। সেখানে ওই পোলে দুটি ফিডার রয়েছে। সেখানে থাকা প্রকৌশলীর নির্দেশনামতে জালাল পোলে উঠে বিদ্যুত সংযোগের কাজ শুরু করতে গেলে বিদ্যুতায়িত হয়ে সেখানে ঝুলে থাকেন। তার শরীর ঝলসে যায়। পরে সেখানে থাকা অন্য কর্মীরা তাকে নিচে নামিয়ে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।
যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার আহমেদ তারেক শামস সাংবাদিকদের জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তিনি মারা যান।
বিদ্যুতবিভাগের কর্মীরা জানান, কাজ করার আগে পাওয়ার হাউজ থেকে সেইসব লাইনের বিদ্যুত সংযোগ বন্ধ করা হয়। অফিস থেকে ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার পরই লাইনম্যানরা পোলে ওঠেন। খোলাডাঙ্গায় কাজ করার সময় সেখানে একটি লাইনের সংযোগ বন্ধ থাকলেও অপরটি সচল ছিল। সেকারণে জালাল কেবল স্পর্শ করার সাথে সাথে সেখানে মারা যান এবং আটকে ছিলেন। এ ঘটনায় তারা দায়িত্বরত প্রকৌশলী সঞ্জয় সরকারকে দায়ী করছেন।
এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে উপ-সহকারী প্রকৌশলী (ডিভিশন-১) সঞ্জয় সরকার বলেন, লাইনে কাজ করার সময় হাউজ থেকে বিদ্যুত সংযোগ বন্ধ (শাট ডাউন) করার পর ক্লিয়ারেন্স দেওয়া হয়। আজ ক্লিয়ারেন্স দেওয়ার আগেই লাইনম্যান পোলে উঠেছিলেন। সেকারণে এতবড় একটি দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।
যোগাযোগ করা হলে ওজোপাডিকোর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শহিদুল আলম সাংবাদিকদের জানান, ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় এবং খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। এ বিষয়ে তদন্ত করে কারও গাফিলতি থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
নিহত জালাল ফকির নেত্রকোনার পূর্র্র্বধলা উপজেলার জড়িয়াবর এলাকার জানিয়েল ফকিরের ছেলে।

আরও পড়ুন