বেঁধে রাখা হয় মাতৃহীন শিশুটিকে

আপডেট: 12:13:46 09/01/2017



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মাদরাসায় না যাওয়ায় মণিরামপুরে আব্দুর রহিম (৯) নামে মাতৃহারা এক শিশুকে শিকল ও দড়িতে বেঁধে রাখেন নানি নূরজাহান ও মামি পলি খাতুন। রোববার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত তার ওপর চলে এই নির্যাতন।
আব্দুর রহিম উপজেলার শ্যামকুড় ইউনিয়নের সুন্দলপুর গ্রামে নানি নূরজাহানের বাড়ির আশ্রিত। সে স্থানীয় একটি মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।
খুলনার ফুলতলা বেজেরডাঙ্গা গ্রামের হাফিজুর রহমানের ছেলে আব্দুর রহিম মাত্র সাত মাস বয়সে মাকে হারায়। বাবা হাফিজুর দ্বিতীয় বিয়ে করায় তাকে আর বাবার কাছে দেয়নি নানা বাড়ির লোকজন। সেই থেকে শিশুটি নানি-মামির কাছেই রয়েছে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, মাদরাসায় না যাওয়ায় আব্দুর রহিমকে তার নানি ও মামি রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ঘরের খুঁটির সঙ্গে শিকল ও দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখেন। জানতে পেরে প্রতিবেশীরা তার নানীর কাছ থেকে চাবি কেড়ে নিয়ে শিকল ও দড়ি খুলে দেন।
রহিমের বাবা হাফিজুর রহমান বলেন, 'ছেলেকে আমার কাছে নিয়ে যেতে চাইলেও দেওয়া হয়নি। নানাবাড়িতে মামি পলি খাতুনের প্ররোচনায় নানি নূরজাহান বেগম প্রায়ই রহিমকে শারীরিক নির্যাতন চালায়। এমনকী তাকে ঠিকমতো খেতেও দেওয়া হয় না।'
রহিমের নানি নূরজাহান বলেন, 'রহিমকে মারিনি। বাড়ির কারেন্ট বিল দিতি গিলাম। পরে বাড়ি আইসে পাব না বলে শিকল দিয়ে বেঁধে গিছিলাম।'
মণিরামপুর থানার এসআই তপন বলেন, 'একটি শিশুকে বেঁধে মারধর করা হচ্ছে বলে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু সেখানে গিয়ে কাউকে পাওয়া পাইনি।
এসময় তিনি শিশুটিকে উঠোনে খেলা করতে দেখেছেন বলে জানান এসআই তপন।

আরও পড়ুন