ভারতে পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য একলাফে দ্বিগুণ, প্রভাব বাজারে

আপডেট: 12:07:31 04/12/2017



img

আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা : ভারতে পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য টনপ্রতি হঠাৎ দ্বিগুণ করায় বিপাকে পড়েছেন আমদানিকারক ও সাধারণ মানুষ।
আগে সেদেশে ৪০০ মার্কিন ডলার দামে পেঁয়াজ বাংলাদেশে রপ্তানি করা হচ্ছিল। এখন তা নির্ধারণ করা হয়েছে ৮৫০ ডলার।
এর ফলে এক সপ্তাহের ব্যবধানে ভোমরা স্থলবন্দরে আমাদানি করা পেঁয়াজের দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। ক্ষতির আশঙ্কায় ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ আমাদানি কমিয়ে দিয়েছেন। যার ফলে বিরূপ প্রভাব পড়েছে ভোমরা বন্দর ব্যবহারকারী লরিচালক ও শ্রমিক-কর্মচারীরা।
ভোমরা স্থলবন্দর সূত্রে জানা যায়, এই বন্দর দিয়ে এক সপ্তাহ আগে গড়ে প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০টি ট্রাক ভারতীয় পেঁয়াজ নিয়ে ঢুকতো। কিন্তু এখন সেই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে মাত্র ৩০ থেকে ৩৫টিতে।
ভারতীয় ট্রাকচালকরা জানান, সেদেশের খুচরা বাজারেও এখন পেঁয়াজ গড়ে ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ভারতে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় সরকার রপ্তানি মূল্য বাড়িয়েছে।
সাতক্ষীরা বড়বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রওশন আলি জানান, বর্তমানে স্থানীয় খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৯৫ থেকে ১০০ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭৫ থেকে ৮০ টাকা দরে। এক সপ্তাহ আগে ভারতীয় পেঁয়াজের দাম ছিল কেজিপ্রতি ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।
পেঁয়াজের দাম হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। ক্ষতির আশংকায় ব্যবসায়ীরা আমদানি কমিয়ে দেওয়ায় দাম আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।
ভোমরা সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কাজী নওশাদ দেলোয়ার রাজু জানান, ভোমরা বন্দরে পেঁয়াজের আমদানি কমেছে। পেঁয়াজের দাম বাড়ায় এ বন্দরে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি শ্রমিক ও লরিচালকরা ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে।
ভোমরা স্থলবন্দর শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, গত অক্টোবর মাসে এ বন্দর দিয়ে এক হাজার ৪০০ ট্রাকে ২৮ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। চলতি মাসে তুলনামূলকভাবে পেঁয়াজ আমদানি কমেছে। এক সপ্তাহ আগে প্রতিদিন ৬০ থেকে ৭০ ট্রাক করে পেঁয়াজ আমদানি হতো। বর্তমানে সে সংখ্যা ৩০ থেকে ৩৫টিতে নেমে এসেছে।

আরও পড়ুন