ভালোবাসা দিবসে উন্মত্ত ‘প্রেমিকের’ খুনখারাবি

আপডেট: 03:04:15 15/02/2018



img
img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার মিরপুরে আব্দুল্লাহ (২৪) নামে এক কলেজছাত্র ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হয়েছেন।
পুলিশ বলছে, ভালোবাসা দিবসে প্রেমে বাধা দেওয়ায় প্রেমিকার ভাই আব্দুল্লাহকে (২৪) হত্যা করেছে প্রেমিক। প্রেমিকার মা ও চাচাতো ভাইকেও গুরুতর জখম করেছে ঘাতক। তবে পরিবারের দাবি, ঘাতক উজ্জ্বল বখাটে। আসমা নামের মেয়েটি তার প্রেমিকা নয়।
ঘটনার পর স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ উজ্জল (২৪) নামে প্রেমিকপ্রবরকে হাতেনাতে আটক করেছে।
আজ বুধবার (১৪ ফেব্রæয়ারি) সন্ধ্যায় মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের বালিয়াশিশা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুল্লাহ স্থানীয় কলেজের ছাত্র এবং বালিয়াশিশা গ্রামের মহাম্মদ আলমের ছেলে।
মিরপুর থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) আজিজুর রহমান জানান, পোড়াদহ এলাকার মহাম্মদ আলমের মেয়ে আসমা খাতুনের (২২) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার হাতিয়া গ্রামের খবির উদ্দিন শেখের ছেলে উজ্জ্বল হোসেনের। বিষয়টি জানাজানি হলে উজ্জ্বলকে বকাঝকা করেন আসমার ভাই আব্দুল্লাহ। বুধবার বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে প্রেমিকা আসমার বাড়িতে আসে উজ্জ্বল। কিন্তু তাকে বাড়িতে ঢুকতে বাধা দেন আব্দুল্লাহ। এসময় উজ্জ্বল ধারালো অস্ত্র নিয়ে আব্দুল্লাহর ওপর চড়াও হয়। তাকে রক্ষা করতে এসে আক্রান্ত হন আব্দুল্লাহর মা ছাবিয়া খাতুন (৪৫) ও চাচাতো ভাই শাজাহান আলী (৩৫)। আক্রান্ত আব্দুল্লাহ ঘটনাস্থলেই মারা যান।
পুলিশ জানায়, আহত দুইজনকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য একই হাসপাতালের মর্গে আনা হয়েছে।
তবে পুলিশ আসমা খাতুন ও উজ্জ্বলের প্রেমের সম্পর্কে বাধা দেওয়ার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে বললেও নিহত আব্দুল্লাহর পরিবারের পক্ষ থেকে ভিন্ন কথা বলা হচ্ছে। তারা দাবি করছেন, আসমার সঙ্গে উজ্জ্বলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল না। বরং আসমাকে উত্ত্যক্ত করতো বখাটে উজ্জ্বল। এর প্রতিবাদ করায় উজ্জ্বল ক্ষিপ্ত হয়ে আব্দুল্লাহকে খুন করে।

আরও পড়ুন