মঞ্জুর বিরুদ্ধে পাল্টা তীর আওয়ামী লীগের

আপডেট: 02:50:15 17/04/2018



img

খুলনা অফিস : বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু হলফনামায় মিথ্যা তথ্য প্রদান করেছেন দাবি করে তার মনোনয়নপত্র বাতিলের দাবি জানিয়েছে আওয়ামী লীগ।
সোমবার গভীর রাতে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের পাঠানো ই-মেইল বার্তায় এ কথা বলা হয়।
এতে উল্লেখ করা হয়েছে, মঞ্জু তার বার্ষিক আয় দেখিয়েছেন মাত্র দুই লাখ টাকা। সে হিসেবে মাসিক আয় আসে প্রায় ১৬ হাজার ৬৬৭ টাকা। যা একজন রিকশাচালকের চেয়েও কম। তাহলে নজরুল ইসলাম মঞ্জুর দেড় কোটি টাকার গাড়িটি চলে কি বাতাসে? আর ড্রাইভারও কি হাওয়া খেয়ে গাড়ি চালান?
বলা হয়, নজরুল ইসলাম মঞ্জু বাস করেন একটি আলীশান ভাড়া বাড়িতে। যে বাড়িটি মাসিক ভাড়া কমপক্ষে ২০ হাজার টাকা। তাহলে তিনি কি বাড়িওয়ালাকে জিম্মি করে অথবা বিনা অর্থে বসবাস করেন? একটি পরিবারে ছেলেমেয়ের লেখাপড়া, খাওয়াসহ মাসে কমপক্ষে খরচ হয় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। তাহলে সাধারণ মানুষের মনেই প্রশ্ন জাগে, বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুর অর্থের উৎস কোথায়?
বার্তায় বলা হয়, বিএনপি একজন নির্বাচিত মেয়র ও মুক্তিযোদ্ধাকে মনোনয়ন না দিয়ে বিশ্ব দুর্নীতিবাজ এবং দেশে-বিদেশে দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি তারেক রহমানের প্রেসক্রিপশন মোতাবেক নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে মনোনয়ন দিয়েছে। খুলনাবাসীর প্রশ্ন, নজরুল ইসলাম মঞ্জু লন্ডনে কত টাকা পাঠিয়ে দলীয় মনোনয়ন নিয়েছেন?
ই-মেইল বার্তায় বলা হয় বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী অসত্য তথ্য প্রদান করায় তার মনোনয়নপত্র বাতিলের জন্য জেলা রির্টানিং অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি জোর আহ্বান জানানো হচ্ছে।
এই বিবৃতি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, এস এম কামাল হোসেন, খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক বিরোধী দলীয় হুইপ এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা, খুলনা মহানগর সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ মিজানুর রহমান মিজান, সদর থানা সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. সাইফুল ইসলাম, দৌলতপুর থানা সভাপতি শেখ সৈয়দ আলী, খালিশপুর থানা সভাপতি একেএম সানাউল্লাহ নান্নু, সোনাডাঙ্গা থানা সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, খানজাহান আলী থানা সভাপতি শেখ আবিদ হোসেন, সদর থানা সাধারণ সম্পাদক ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, খালিশপুর থানা সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম বাশার, সোনাডাঙ্গা থানা সাধারণ সম্পাদক তসলিম আহমেদ আশা, দৌলতপুর থানা সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বন্দ, খানজাহান আলী থানা সাধারণ সম্পাদক এস এম আনিছুর রহমানের বলে বার্তায় উল্লেখ করা হয়।

আরও পড়ুন