মণিরামপুরে ছেলের হাতে বাবা খুন

আপডেট: 01:13:40 23/03/2019



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে টাকা-পয়সা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ছেলের শাবলের আঘাতে তাইজুল পাটোয়ারি নামে এক বৃদ্ধ খুন হয়েছেন।
শুক্রবার বিকেলে উপজেলার গালদা উত্তরপাড়ায় এঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে ছেলে আনোয়ার হোসেন পলাতক রয়েছেন।
খবর পেয়ে মণিরামপুর থানা পুলিশ বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করে হেফাজতে নিয়েছে।
জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ তাইজুলের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম, দুই পুত্রবধূ মুন্নি ও রেহেনা এবং ভাই মাজু পাটোয়ারিকে আটক করেছে।
নিহত তাইজুল গালদা গ্রামের মৃত হাসান আলী পাটোয়ারির ছেলে। ঘাতক আনোয়ার বৃদ্ধের বড় ছেলে।
নিহতের ডান হাত ও ডান কাঁধে আঘাতে চিহ্ন রয়েছে।
ভগ্নিপতি শুকুর আলী ও পুলিশ জানায়, নিহতের দুই ছেলে আনোয়ার ও হুমায়ুন। বহু বছর ধরে তারা প্রবাসে আছেন। প্রবাসে থাকা অবস্থায় তারা বাবাকে প্রায় ৫০ লাখ টাকা দিয়েছিলেন। ৬-৭ মাস আগে আনোয়ার বাড়িতে আসেন। দোকান করার কথা বলে তিনি বাবার কাছে টাকা চান। এই নিয়ে বাবা-ছেলের দ্ব›দ্ব। শুক্রবার দুপুরে জুমার নামাজ শেষে বাড়িতে ফিরে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। গণ্ডগোল হচ্ছে শুনে ভাই মাজু পাটোয়ারি এগিয়ে আসেন। এক পর্যায়ে আনোয়ার বাবা তাইজুলের ওপর চড়াও হন। তখন চাচা মাজু ঠেকাতে এলে তাকে মেরে ঘরে আটকে রেখে বাবা তাইজুলকে টেনে-হিঁচড়ে উঠোনে নিয়ে আসেন আনোয়ার। এরপর হাতে থাকা শাবল দিয়ে তিনি বাবাকে আঘাত করলে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় তাইজুলের।
মণিরামপুর থানার এসআই আব্দুর রহমান বলেন, ‘বাবাকে খুন করে ছেলে পালিয়েছে। হত্যার কাজে ব্যবহৃত শাবল ও কাঁচি উদ্ধার করা হয়েছে। খুনের ব্যপারে স্পষ্টভাবে কেউ মুখ না খোলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম, ছেলে আনোয়ারের স্ত্রী মুন্নি, হুমায়ুনের স্ত্রী রেহেনা এবং ভাই মাজু পাটোয়ারিকে আটক করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন