মণিরামপুরে দুইজনের অপমৃত্যু

আপডেট: 06:09:41 08/10/2018



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে রোকেয়া বেগম (৪৮) নামে চার সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে।
রোববার রাত তিনটার দিকে স্বজনরা বাড়ির আঙিনার পেয়ারাগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করেন।
রোকেয়া বেগম উপজেলার জালালপুর গ্রামের লোকমান হোসেনের স্ত্রী।
খবর পেয়ে সোমবার দুপুরে থানার এসআই সমেন বিশ্বাস ঘটনাস্থলে যান। বিকেল সাড়ে পাঁচটায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিনি ঘটনাস্থলে অবস্থান করছিলেন।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মুনসুর আলী জানান, বেশ কয়েকদিন ধরে মাথার যন্ত্রণায় ভুগছিলেন রোকেয়া বেগম। রোববার রাতের খাবার শেষে বাড়ির সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। পরে রাতের কোনো এক সময় সবার অজান্তে বাড়ির আঙিনায় পেয়ারাগাছে রশি জড়িয়ে গলায় ফাঁস দেন রোকেয়া। টের পেয়ে রাত তিনটার দিকে রাড়ির লোকজন তার লাশ নিচে নামান।
থানার এসআই সমেনকুমার বিশ্বাস বলেন, ‘মাথায় সমস্যা থাকায় ওই নারী আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। লাশ দাফনের অনুমতি পেতে স্বজনরা ডিসি স্যারের কাছে গেছেন। লাশ হেফাজতে নেওয়া হবে কি না তা এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি।’
এদিকে সোমবার সকালে মাঠে মাছ ধরতে গিয়ে কওসার আলী (৮০) নামে এক বৃদ্ধ মারা গেছেন। তিনি উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত ওয়াহেদ আলী সরদারের ছেলে।
ভাগ্নে কবির হোসেন বলেন, ‘সকালে ভাত খেয়ে বাড়ির পাশে ফটকের বিলে মাছ ধরতে যান মামা। বেলা ১২টার দিকে মুজাহিদ নামে একটি শিশু বাড়িতে এসে তার মৃত্যুর খবর দেয়। পরে লোকজন গিয়ে লাশ বাড়িতে নিয়ে আসে।’
কওসার আলী স্ট্রোক করে মারা গেছেন বলে দাবি ভাগ্নে কবিরের।

আরও পড়ুন