মণিরামপুরে দুই গৃহবধূর আত্মহত্যা

আপডেট: 01:11:48 15/02/2018



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে বুধবার দুই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। এদের মধ্যে রোগগ্রস্ত এক গৃহবধূ অভাব অনটনের কারণে আত্মহত্যা করেন। অন্যজনের আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি।
বুধবার দুপুরে উপজেলার বিপ্রকোনা গ্রামে রাবেয়া খাতুন (৩৫) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেন। রাবেয়া ওই গ্রামের ভ্যানচালক নজরুল ইসলামের স্ত্রী।
খবর পেয়ে সন্ধ্যার দিকে থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই তোবারক আলী ঘটনাস্থলে যান। রাত সাড়ে আটটার দিকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করে।
এসআই তোবারক আলী বলেন, ‘নজরুল ইসলামের অভাবের সংসার। সে ভ্যান চালিয়ে সংসার চালায়। নজরুলের স্ত্রী রাবেয়া বহুদিন ধরে অসুস্থ। তার হার্টে ছিদ্র ছিল। কিন্তু অভাবের সংসার হওয়ায় নজরুল স্ত্রীকে ভালোমতো চিকিৎসা করাতে পারছিল না। বুধবার সকালে রাবেয়া তাকে ডাক্তারের কাছে নিতে বলে। হাতে টাকা হলে পরে নেবে বলে ভ্যান চালাতে বেরিয়ে যায় নজরুল। রাবেয়ার ছোট মেয়ে শান্তাও অসুস্থ। সংসারের অভাব অনটনের কথা ভেবে দুপুর পৌনে একটার দিকে বিষ পান করে রাবেয়া। টের পেয়ে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে দুপুর আড়াইটার দিকে নওয়াপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার রাবেয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।’
রাবেয়ার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হবে বলে জানান এসআই তোবারক।
এদিকে বুধবার সন্ধ্যার পর মণিরামপুর শহরের মোহনপুর গ্রামে জেসমিন (৩০) নামের এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। জেসমিন মোহনপুর এলাকার চা বিক্রেতা সেলিম হোসেনের স্ত্রী।
স্থানীয় কাউন্সিলর কামরুজ্জামান গৃহবধূ জেসমিনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা বলতে পারেননি।
মণিরামপুর থানার ডিউটি অফিসার এসআই রুকসানা বলেন, ‘জেসমিন নামের কারো আত্মহত্যার খবর পাইনি।’

আরও পড়ুন