মহেশপুরের বাজারে বাজারে মাদকবিরোধী ব্যানার ফেস্টুন

আপডেট: 07:47:12 14/12/2016



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ‘মাদককে না বলুন, মাদককে ঘৃণা করুন’সহ বিভিন্ন স্লোগান নিয়ে প্রতিটি গ্রামে বড় বড় ব্যানার আর ফেস্টুন দিয়ে মাদক থেকে সাবধান করা হচ্ছে মহেশপুরবাসীকে। এছাড়া এলাকার বড় বড় বাজারগুলোতে সভা করে মাদক ছেড়ে হাতে বই-খাতা আর কলম তুলে নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।
সম্পতি সাংবাদিকদের নিয়ে থানা চত্বরে এক মতবিনিময় সভায় থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিপ্লব মহেশপুরকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করেন। তিনি গত ২ ফ্রেরুয়ারি ঝিনাইদহের মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসাবে যোগদান করেন।
যোগদানের পর থেকে তিনি দশ মাসে প্রায় দেড় কোটি টাকার বিভিন্ন মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছেন। উদ্ধার করা মাদকদ্রব্যের মধ্যে রয়েছে এক হাজার ৪১৩ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ৭৭১ বোতল ফেনসিডিল, ১১ কেজি গাঁজা এবং এক হাজার ১৩৮ বোতল ভারতীয় ও দেশি চোলাই মদ।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ফ্রেরুয়ারি মাসে উদ্ধার করা মাদকদ্রব্যের মধ্যে রয়েছে ৮৯ বোতল ফেনসিডিল, ১৬০ বোতল মদ, ২০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ৬০০ গ্রাম গাঁজা, মার্চ মাসে ৬৫ বোতল মদ, এপ্রিল মাসে ৫০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, মে মাসে ১৭ বোতল ফেনসিডিল, ৩৯৬ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ১৫৫ বোতল মদ, দুই কেজি গাঁজা, জুন মাসে ৭৫ বোতল ফেনসিডিল, ৪৪০ বোতল মদ, ৭৫০ গ্রাম গাঁজা, জুলাই মাসে ৯৩০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ২৫০ গ্রাম গাঁজা, ৫৪ বোতল মদ, আগস্ট মাসে ২১৪ বোতল মদ, ৪০ বোতল ফেনসিডিল, ৫৫০ গ্রাম গাঁজা, সেপ্টেম্বর মাসে ২৩১ বোতল ফেনসিডিল, ১২ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, অক্টোবর মাসে ১৪০ বোতল ফেনসিডিল, তিন কেজি ৩০০ গ্রাম গাঁজা ও নভেম্বর মাসে ১৪০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।
বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও মহেশপুর মডেল পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক এবং বর্তমান পৌর ল্যাব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এটিএম খাইরুল আনাম জানান, বর্তমানে মহেশপুর উপজেলাকে মাদকমুক্ত ঘোষণা দেওয়ায় আমরা খুব আনন্দিত। যে ব্যক্তি গত আট মাসে যে পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিকভাবে রেখেছে তাকে অবশ্যই সাধুবাদ দেওয়া উচিত।
স্বরুপপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জানান, ওসি হিসেবে মহেশপুরে যোগদানের পর আমিনুল ইসলাম বিপ্লব যে মাদকদ্রব্যমুক্ত এলাকা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন, এর আগে কখনো কোনো ওসি এমন ঘোষণা দেননি। শুধু তাই না, তিনি সুযোগ পেলেই বিভিন্ন ইউনিয়নে মাদকমুক্ত এলাকা গড়ার কাজ করে যাচ্ছেন।
ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী আতিয়ার রহমান আতি ও আবুল হাশেম পাঠানের মত, আগের কোনো কোনো ওসি বরং মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলেছেন। বর্তমান ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহেশপুরে যোগদানের পর মাদকমুক্ত করে স্কুল-কলেজ ছাত্রদের হাতে বই খাতা আর কলম হাতে তুলে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আসছেন।
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ড. আব্দুল মালেক গাজী বলেন, ‘ওসি মহেশপুরকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করায় আমি খুব আনন্দিত।’

আরও পড়ুন